Date : 2022-10-06

ফের তালিবানি ফতোয়া

পৌষালী সেনগুপ্ত, নিউজ ডেস্ক তালিবান আছে তালিবানেই। ক্ষমতা দখলের পর তালিবানরা জানিয়েছিল াগের থেকে অনেকটাই বদল হবে তাদের ভাবনা চিন্তায়। কিন্তু তার যে কতটা পরিবর্তন হয়েছে তা রীতিমতো হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে আফগানিস্তানবাসী। এবার তাঁদের নয়া ফতোয়া।হিজাব নয়। রাস্তায় বেরতে হলে পরতে হবে ‘চাদরি’। ঢেকে রাখতে হবে সমস্ত শরীর। আফগান নারীদের উদ্দেশে এমনই ফতোয়া জারি করল তালিবান। অগস্টে আফগানিস্তান দখল করে তালিবানরা। ক্ষমতা দখলের পর জানিয়েছিল তাঁরা নাকি ২.০ সরকার।গতবারের মতো দমন পীড়ন নয়, বরং সাধারণ আফগান বিশেষ করে নারীদের স্বাধীনতা রক্ষায় ব্রতী থাকবে তারা। কিন্তু তা যে স্রেফ ‘ফাঁকা বুলি’, সেটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল আগেই। এবার তা একেবারেই স্পষ্ট হয়ে গেল। ক্ষমতা পুনর্দখলের পরে এই নির্দেশকেই তালিবানের সবচেয়ে কড়া নির্দেশ বলে মনে করা হচ্ছে। তালিবানের সর্বোচ্চ নেতা আখুন্দজাদা এও জানিয়ে দিয়েছে বাড়ির পুরুষ আত্মীয়দের সামনেও মুখ হিজাবে ঢেকে তবেই আসা যাবে শরিয়তি নিয়ম মেনে। কেবল চোখ ছাড়া আর কিছু দৃশ্যমান রাখা যাবে না। যদিও এই নিয়ম থেকে রেহাই দেওয়া হয়েছে বয়স্ক মহিলা ও শিশুকন্যাদের। সেই সঙ্গে আখুন্দজাদার আরেক ফতোয়া, প্রয়োজন ছাড়া বাড়িতেই থাকবে হবে মহিলাদের।ক্ষমতা দখলের পর থেকেই ধীরে ধীরে স্বমহিমায় ফিরেছে তালিবান। বিভিন্ন অপরাধে কোনো কারণ ছাড়াই শুধু তাঁদের মর্জি অনুযায়ী কেটে ফেলা হয়েছে হাত পা,শিরচ্ছেদের মতো শাস্তিও পেয়েছেন সেখানকার মানুষ।এক কৌতুকশিল্পীকে মানুষকে হাসানোর ‘অপরাধে’ মেরে ঝুলিয়ে দিয়েছিল তারা।সেই দৃশ্য দেখে শিউরে উঠেছিল গোটা বিশ্ব। একইসঙ্গে নারীর স্বাধীনতাকে খর্ব করার সবরকম ফতোয়া জারি করা হয়েছিল।বিভিন্ন দোকান সরিয়ে ফেলা হয়েছিল তাঁদের সমস্ত ছবি। এবার এই নির্দেশের পর আরোও পরিষ্কার, আগামিদিনে আরও কঠোর চেহারায় অবতীর্ণ হতে চলেছে তালিবান।প্রথমবারের তালিবানি শাসনের সময় থেকেই সবচেয়ে বেশী ভুক্তভোগী মহিলারা। তাঁদের শিক্ষা, সঙ্গীত চর্চা, রাস্তায় বেরোনো সবমিলিয়ে বেঁচে থাকার ক্ষেত্রেই একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল তাঁরা।এবারের এই নিষেধাজ্ঞার জেরে যে আরো কঠিন পরিস্থিতি হতে চলেছে মেয়েদের তা বলাই বাহুল্য।