Date : 2022-05-27

মঙ্গলবার ইদ, ইদ-উল-ফিতর এবং ইদ-আল-আদাহর পার্থক্য কি?

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক: মঙ্গলবার দেশ জুড়ে পালিত হতে চলেছে পবিত্র ইদ। রমজান মাসের এক মাস উপবাস রাখার পর এই দিন সাড়ম্বরে ইদ উৎসব পালন করবেন মুসলিম ধর্মাবলম্বীর মানুষেরা। তবে বছরে দু’বার পালিত হয় ইদ। কিন্তু এই দুই ইদের পার্থক্য কি?
রমজান মাস চলে ৭২০ ঘণ্টা ধরে, যা হল চার সপ্তাহ ২ দিন। এই সময় বিভিন্ন রকম বিধি নিষেধ ও আচার উপাচার মেনে চলেন মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা। মঙ্গলবার পালিত হবে ইদ-উল-ফিতর। রমজান মাসের শেষে এই ইদ পালন করেন মুসলিমরা। মুসলিম সম্প্রদায়ের দুটি সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে একটি হল ইদ-উল-ফিতর। অন্যটি হল ইদ-আল-আদাহ।


রমজান মাসের পর পালিত হয় ইদ-উল-ফিতর। গোটা রমজান মাস রোজা বা উপবাস পালনের পর খুবই জাঁকজমকের সঙ্গে পালিত হয় ইদ-উল-ফিতর। রমজান মাসে সূর্যাস্ত থেকে সূর্যোদয় পর্যন্ত উপবাস রাখা হয়ে থাকে। অন্যদিকে প্রতি বছর সারা বিশ্বজুড়ে ইদ-আল-আদাহ পালিত হয়। ইদ-আল-আদাহর আরেক নাম কোরবানির ইদ বা বকরিদ। এই ইদকে কোরবানির ইদ বলে। এই উৎসবে কিছু না কিছু আল্লাকে উৎসর্গ করে কোরবান করতে হয়। হিজরি ক্যালেন্ডারের ১২তম ও শেষ মাস ধুল হিজার, দশমতম দিনে পালিত হয় ইদ-উল-আদাহ। আকাশে নতুন চাঁদ ওঠার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন দেশে মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা এই উত্‍সব পালন করেন। ইসলাম মতে, সর্বশ্রেষ্ঠ ত্যাগের প্রতীক এই কোরবানির উৎসব। মুসলিম ধর্মের উত্‍সব লুনার বা চান্দ্র ক্যালেন্ডারের ওপর নির্ভরশীল। সৌর ক্যালেন্ডারের থেকে চান্দ্র ক্যালেন্ডার ১১ দিন ছোট হয়। তাই প্রতি বছর ইদের দিন আলাদা আলাদা হয়। রমজান মাস শেষ হবার মোটামুটি ৭০ দিন পরে ও ইসলামিক ক্যালেন্ডার জিরহজ মাসের ১০ তারিখে কোরবানির ইদ বা বকরিদ পালন করা হয়।

এই দিন সকালে নামাজ পড়ার পড়ে পশু কোরবানি দেওয়া হয়। ইদের দিন অনেকে মিলে এক সঙ্গে ইদের নামাজ পরে থাকে। ২৯-৩০ দিন পর্যন্ত চলে রমজান মাস। এই একমাস সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত উপবাস বা রোজা রাখা হয়। ইসলাম অনুযায়ী, হজরত মহম্মদ যখন কুরান সৃ্ষ্টি করেন তখন থেকেই রমজান মাস পালন হয়। চাঁদ দেখা দেওয়ার পর শেষ হবে রমজান মাস, পালিত হবে ইদ। প্রচণ্ড গ্রীষ্মে রমজান পালিত হয়। অ্যারাবিক ভাষায় রমজান কথাটি এসেছে রামিদা থেকে, যার অর্থ প্রচণ্ড গরম। ইদের অর্থ ধৈর্য্য, ভক্তি, দয়া ও সহ্য ক্ষমতার উদযাপন। নতুন জামাকাপড় পরে এই দিনটা পরিবারের সঙ্গে কাটান মুসলিমরা। এছাড়াও ইদের দিনে দরিদ্রদের খাদ্যদ্রব্য দান করারও রীতি রয়েছে।