Date : 2022-06-30

সাগ্নিক ও ঐন্দ্রিলার নামে গড়ফা থানায় খুনের মামলা দায়ের পল্লবীর পরিবারের

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক:টেলি অভিনেত্রী পল্লবী দের রহস্য মৃত্যুতে খুনের মামলা দায়ের পরিবারের। সাগ্নিক ও ঐন্দ্রিলার বিরুদ্ধে অভিযোগ অভিনেত্রীর পরিবারের। ঘটনার তদন্তে গড়ফা থানার পুলিশ।
রবিবার গড়ফার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় মেগা সিরিয়ালের অভিনেত্রী পল্লবী দের ঝুলন্ত দেহ। খুন করা হয়েছে মেয়েকে অভিযোগ করে পল্লবীর পরিবার। আইনজীবীদের সঙ্গে নিয়ে গড়ফা থানায় লিখিত অভিযোগ করে পল্লবীর পরিবার। পুলিশের কাছে উঠে আসে একের পর এক নয়া তথ্য। সাগ্নিকের পুরনো প্রেমিকা বাঁশদ্রোণীর বাসিন্দা সুকন্যা মান্নাকে রেজিস্ট্রি করে বিয়ে করে সাগ্নিক। রেজিস্ট্রিতে সাক্ষী হিসেবে সই করেছিল অভিনেত্রী নিজে।

বিয়ের পর বাঁশদ্রোণীতেই বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকা শুরু করে হাওড়ার বাসিন্দা সাগ্নিক ও সুকন্যা। এরপরই সাগ্নিকের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয় পল্লবীর। পল্লবী ও সাগ্নিকের সম্পর্ক সুকন্যা জানতে পারলে সাগ্নিক সুকন্যাকে ডিভোর্স না দিয়ে লিভ ইনে থাকা শুরু করে পল্লবীর সঙ্গে। দীর্ঘদিন মানসিক অবসাদে ভুগতে থাকে সুকন্যা। ডিভোর্স না দিয়েই পল্লবীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয় সাগ্নিক। সাগ্নিক ও তাঁর বাবার নামে রাজারহাটে ফ্ল্যাট কেনে পল্লবী। নিজের ও সাগ্নিকের নামে ব্যাঙ্কে ১৫ লক্ষ টাকার জয়েন্ট ফিক্স ডিপোজিট করে পল্লবী। সাগ্নিকের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাৎ ও বিয়ের প্রতিশ্রুতির অভিযোগ এনেছে পল্লবীর পরিবার। পাশাপাশি উঠে এসেছে ঐন্দ্রিলার নাম। পল্লবী শুটিংয়ে বেরিয়ে গেলে ঐন্দ্রিলা সাগ্নিকের ফ্ল্যাটে যাওয়া আসা করত বলেও অভিযোগ পল্লবীর পরিবারের। সাগ্নিক ও পল্লবীর মধ্যে প্রায়শই অশান্তি লেগে থাকত। সাগ্নিক মদ্যপ অবস্থায় পল্লবীকে মারধর করত বলে অভিযোগ। ঘটনার দিন পল্লবীকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পল্লবীর ফোন থেকে ফোন করে তাঁর পরিবারকে মেয়ের অচৈতন্য অবস্থার কথা জানায় সাগ্নিক। সাগ্নিক কাউকে খবর না দিয়ে কেয়ার টেকারের সাহায্যে দেহ নামায় বলে অভিযোগ পল্লবীর পরিবারের। কেন পল্লবীর ফোন থেকে ফোন করেছিল সাগ্নিক? কেনই বা মেয়ের মৃত্যুর খবর জানায়নি সাগ্নিক? কেন কাউকে খবর দেয়নি সাগ্নিক? তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে পল্লবীর পরিবার। ঐন্দ্রিলার সঙ্গে পরিকল্পনা করে খুন করেছে সাগ্নিক বলে অভিযোগ তুলেছে পল্লবীর পরিবার। এদিন সন্ধ্যা নাগাদ গড়ফা থানায় যায় ভারপ্রাপ্ত ডিসি (সাউথ সুবারবান) অতুল ভেঙ্কটেশ। দীর্ঘক্ষণ চলে জিজ্ঞাসাবাদ। ঘটনা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।