Date : 2022-05-28

মালদহে বোমা বিস্ফোরণ। বিজেপি বিধায়কের অভিযোগের ভিত্তিতে দিল্লিতে তলব মুখ্যসচিব ও এডিজি আইজিপি সদর কে।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : মালদহে বোমা বিস্ফোরণে পাঁচ শিশু আহত হ‌ওয়ার ঘটনায় দিল্লিতে তলব করা হল রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী ও এডিজি আইজিপি সদর কে জয়রামন কে। মে মাসের ২০ তারিখ সশরীরে দিল্লির শিশু সুরক্ষা কমিশনের দফতরে দেখা করতে বলা হয়েছে।

এপ্রিল মাসের শেষ সপ্তাহে মালদহ জেলার বৈষ্ণবনগর বিধানসভার অন্তর্গত কালিয়াগঞ্জ থানার গোপালনগর গ্রামে একটি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বল ভেবে খেলতে গিয়ে ওই বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় গ্রামের পাঁচটি শিশু আহত হয়। ঘটনার পর পুলিশি তল্লাশিতে প্রায় দুই হাজারের বেশি বোমা উদ্ধার হয়। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ বেশ কয়েক জনকে গ্রেফতার করেছে। কিন্তু পুলিশি নিষ্ক্রিয়তা ও জখম শিশুদের ঠিকঠাকভাবে চিকিৎসা করানো হচ্ছে না, এই অভিযোগ করে জাতীয় শিশু সুরক্ষা কমিশনের দ্বারস্থ হন মালদার ইংলিশবাজারের বিজেপি বিধায়ক শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী।

শিশু সুরক্ষা কমিশন গত মাসের ২৫ তারিখ এই ঘটনার বিস্তারিত রিপোর্ট চেয়ে ও জখম শিশুদের চিকিৎসার কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানতে চেয়ে চিঠি দেন রাজ্যের মুখ্যসচিব হরেকৃষ্ণ দ্বিবেদী ও এডিজি আইজি কে জয়রামনকে। শুক্রবার জাতীয় শিশু সুরক্ষা কমিশনের যে চিঠি নবান্নে এসে পৌঁছেছে তা অনুযায়ী, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের পক্ষ থেকে ওই ঘটনা নিয়ে কোন রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়নি বলে জানানো হয়েছে। তাই ওই ঘটনা অ্যাকশন টেকেন রিপোর্ট ও আহত শিশুদের চিকিৎসাজনিত বিস্তারিত রিপোর্ট নিয়ে আগামী কুড়ি তারিখ বিকেল তিনটের সময় দিল্লীর জাতীয় শিশু সুরক্ষা কমিশনের অফিসে রাজ্যের মুখ্যসচিব হরেকৃষ্ণ দ্বিবেদী ও এডিজি আইজিপি কে জয়রামনকে সশরীরে হাজির থাকার নির্দেশ পাঠানো হয়েছে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অনেকবারই কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশন বা শিশু সুরক্ষা কমিশন বা মহিলা কমিশনের অতি সক্রিয়তা নিয়ে এর আগে বেশ কয়েকবার প্রশ্ন তুলেছেন। কয়েকদিন আগে নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী এমন অভিযোগ তুলেছিলেন যে এই কমিশনগুলি বিজেপি শাসিত রাজ্যের কোন ঘটনা চোখে দেখে না। এরা শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গে কিছু ঘটলেই নড়েচড়ে বসে। এই অবস্থায় রাজ্যের মুখ্যসচিব বা আইজিপি কি করেন সেটাই এখন দেখার।