Date : 2022-10-02

গাঁয়ের রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে গাছ থেকে তালশাঁস পেড়ে খেলেন রাজ্যের মন্ত্রী। ফিরে গেলেন শৈশবে।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : তিনি এখন রাজ্যের মন্ত্রী। দু’দুটো দফতর সামলাতে হয় তাঁকে। তাই বলে হাতের সামনে রসালো তালশাঁস পেলে কেমন করে আর গাড়িতে বসে থাকেন। বসে থাকতে পারেন নি বীরবাহা হাঁসদা।

মঙ্গলবার ঝাড়গ্রামের বীনপুরের গোলাশূলি গ্রামে ঈদের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন রাজ্যের বন দফতর ও ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা। সেখান থেকে ফেরার সময় মন্ত্রী দেখতে পান গ্রামের কিছু ছেলে মেয়ে মাঠে বসে তালশাঁস খাচ্ছে। হঠ্ করেই ছোটোবেলা মনে পরে যায় তাঁর। তিনিও তো এমনি করেই তাঁর গ্রামের বাড়িতে গেলে বন্ধুদের সাথে, পরিবারের মানুষদের সাথে তালশাঁস পেড়ে খেতেন একসময়। হঠাৎ তাঁর মনে হলো যদি এখন ওদের সাথে তালশাঁস খাওয়া যেত ! যেমন ভাবা, তেমন কাজ।

ড্রাইভারকে বললেন গাড়ি থামাতে। নিজে মন্ত্রীর আভিজাত্য ছেড়ে সটান গাড়ি থেকে নেমে গাঁয়ের কচিকাঁচাদের সঙ্গে মেতে উঠলেন তালশাঁস পাড়তে। নিজেই তদারকি করলেন তালশাঁস পাড়তে ও কাটতে।

তারপর সেই ছোটোবেলার মতো মুখ দিয়ে টেনে খেলেন। এই প্রসঙ্গেই মন্ত্রী জানালেন, “আসলে এখন এত কাজের চাপ থাকে, এখন তো আর এগুলো হয়ে ওঠে না।

তাই বাচ্চাগুলোকে দেখেই নেমে পড়লাম। আসলে আমরা মন্ত্রী সান্ত্রী যাই হ‌ই না কেন, কখনো কখনো শৈশবে ফিরে যাওয়ার মূহুর্ত সামনে পেলে সেটা আর ছাড়তে ইচ্ছা করে না।” এই যে কিছুটা সময় শৈশবে ফিরে যাওয়া, গাঁয়ের মাঠে নেমে সেই ছোটোবেলার মতো তালশাঁস খাওয়া, এটা যে তাঁকে বেশ কিছুটা ছুঁয়ে গিয়েছে তার প্রকাশ তিনি ফেসবুকেই লিখেছেন। নিজের ফেসবুক পোষ্টে তালশাঁস খাওয়ার ছবিও দিয়েছেন মন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা।