Date : 2022-06-30

জামিন সংক্রান্ত মামলায় পুলিশ কমিশনারের ভূমিকায় ক্ষুদ্ধ হাইকোর্ট।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক:- একটি জামিন সংক্রান্ত মামলায় চন্দননগরের পুলিশ কমিনারের ভূমিকা ক্ষুদ্ধ হাইকোর্ট।বিষয়টি খতিয়ে দেখতে নির্দেশ ডিজি কে। আগামি সাত দিনের মধ্যে পুলিশ কমিশনার অর্ণব ঘোষকে তাঁর এই আচরণের ব্যাখ্যা দিয়ে হলফনামা জমা দিতে হবে।

প্রসঙ্গত,অর্পণ হাজরা সহ অনেকে কলকাতা হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন জানান। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি তাঁদের এক আত্মীয় কে মৃত দেখিয়ে ভূমি ও ভূমি সংস্কার দফতর থেকে জমি নথিভুক্ত এর কাজ করিয়েছে। এই মর্মে এই অভিযোগও দায়ের হয়। গ্রেফতারি এড়াতে আবেদন কারীরা হাই কোর্টে মামলা করেন।

বৃহস্পতিবার সেই মামলার শুনানিতে বিচারপতি জয়মাল্য বাগচী ও বিচারপতি অনন্যা বন্দোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ এই নির্দেশ দিতে গিয়ে বলে, এটাকে শুধু এক ব্যক্তির জামিনের মামলা হিসেবে দেখছে না আদালত। এক জন সরকারি আধিকারিকের ভূমিকায় উদ্বিঘ্ন আদালত। তাই আদালতের নির্দেশ সত্বেও সেই সঠিক নির্দেশ একজন পুলিশ কমিশনার সঠিক ভাবে মানছেন না এটা আদালতের কাছে আশ্চর্য্যের বিষয়। আদালত চন্দননগরের পুলিশ কমিশনারকে নির্দেশ দিয়েছিল জমি সংক্রান্ত একটি মামলায় ভূমি সংস্কার দফতরএর আধিকারিকের ভূমিকা খতিয়ে দেখে রিপোর্ট দিতে।
এদিন জমা পড়া রিপোর্ট দেখতে গিয়েই বিতর্কের সূত্রপাত। বিচারপতিদ্বয় খতিয়ে দেখতে গিয়ে দেখেন কেস ডায়েরির মাঝের ৫ টি পাতা নেই।
দিনের প্রথম ধাপে আদলত ক্ষুব্ধ হয়ে রাজ্য পুলিশের ডিজি কে তলব করার সিদ্ধান্ত নেয়। আদালতের মন্তব্য, যেখানে একজন পুলিশ কমিশনার তদন্ত করছেন এবং তিনি নিজে সেই কেস ডায়েরি নিয়ে আসছেন সেখানে এই ধরনের ঘটনা কি করে ঘটে। এখানে আদালতের প্রতি দায় সারা মনোভাবই প্রমাণিত হচ্ছে।