Date : 2022-06-26

দুর্গাপুজোর কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গেছে। হাতে মাত্র 100 দিনের মতো সময় বাকি।

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিক:- ২০২২-র কাউন্টডাউন শুরু। ২০২০ এবং ২০২১ সালে করোনার কারণে পুজোর জাঁকজকম সেভাবে হয়নি। মানুষ ঠাকুর দর্শন করলেও সংক্রমণের ভয় সেভাবে ঘুরতে পারেনি। দুর্গাপুজো আসতে প্রায় ১০০ দিন বাকি। দুবছরের বাধা কাটিয়ে লাভের মুখ দেখার আশায় কুমোরটুলির মৃতশিল্পীরা।


শরতের আকাশে পেঁজা তুলোর মতো ইতিউতি মেঘ। কাশফুলের মেলা। জানান দিচ্ছে মা দুর্গার আবাহন। দুর্গাপুজোর ঢাকে কাঠি দেওয়ার সময় ঘনিয়ে আসছে। যারা নিজের সন্তানের ন্যায় একটু একটু করে ঠাকুর গড়ার কাজ শুরু করেন সেই মৃতশিল্পীরা আশায় বুক বাঁধছেন। এবছর বাজার ভালো যাতে হয়। দুবছর করোনার কারণে প্রতিমার বায়না সেভাবে হয়নি। জাঁকজমক হীন ছিল পুজো প্যান্ডেলও। এবারের দুর্গাপুজো আসতে সময় আছে প্রায় ১০০ দিন। ফলে কাজও শুরু হয়ে গেছে মৃতশিল্পীদের ঘরে ঘরে। বড় থেকে ছোট দুর্গা তৈরি হচ্ছে কুমোরটুলিতে। এবছর বড় দুর্গার যেমন চাহিদা রয়েছে তেমন ছোট দুর্গারও চাহিদা তুঙ্গে। রথের দিন থেকে বায়না শুরু হয়ে যায়। তবে এবার রথ আসার আগে থেকেই বায়না শুরু হয়ে গেছে বলে জানান মৃতশিল্পী বঙ্কিম পাল। ঠাকুর তৈরি করার জন্য যেসব সামগ্রী দরকার যেমন মাটি, খড়, বাঁশ- এইসব জিনিসের দাম বেড়ে যাওয়ায় অসুবিধার মুখে পড়তে হচ্ছে শিল্পীদের। প্রতিমা তৈরির সামগ্রীর দামে হেরফের হলেও, ঠাকুরের দাম সেভাবে বাড়াতে পারছেন না বলে অভিযোগ কুমোরটুলির গৌরাঙ্গ পাল সহ অন্যান্য মৃতশিল্পীদের। কলকাতার দুর্গাপুজোকে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউনেস্কো। বিশ্বের মঞ্চে দুর্গাপুজোকে সেরার স্বীকৃতি- যা বাঙালির কাছে বাড়তি পাওনা। সেই দুর্গাপুজো এবছর জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে হবে বলে আশা রাখছেন মৃতশিল্পী থেকে পুজো উদ্যোক্তারা।