Date : 2022-06-30

পরিচয়পত্র নিয়ে সংশয়ে সংখ্যালঘুরা

ঋক পুরকায়স্থ, নিউজ ডেস্ক ঃ সংখ্যালঘুদের পরিচয়পত্র দেওয়ার সীদ্ধান্ত নিল অসম সরকার। ৬টি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে পরিচয়পত্র দেওয়ার সীদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। সংখ্যালঘুরা যাতে সরকারি সমস্ত সুযোগ সুবিধা পায় সেই কারণেই এই সীদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে বিরোধীদের একাংশের দাবি বিভাজনের রাজনীতি করে বিজেপি। এপ্রশঙ্গে অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কেশ। মোহন্ত জানিয়েছেন, মুসলিম, শিখ, খ্রীষ্টান, বৌদ্ধ, জৈন ও পার্সিদের এই মাইনোরিটি সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। এবারই প্রথম এই ধরণের সীদ্ধান্ত। এতদিন আমরা এসসি, এসটি ও অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণিকে শংসাপত্র দিতাম। তবে এতদিন সংখ্যালঘুদের সার্টিফিকেট দেওয়া হত না।

সংখ্যালঘুদের উন্নয়ন ও তাদের বিভিন্ন স্কিম রূপায়নের জন্য আমাদের পৃথক বোর্ড রয়েছে। কিন্তু কারা সংখ্যালঘু সেটা বোঝা যাচ্ছে না। এবার তাঁরাও সার্টিফিকেট পাবেন। তার মাধ্যমে তাঁরা সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাবেন। সম্প্রতিকালে এনআরসি ও সিএএ নিয়ে বেকায়দায় পড়েছে অসম সরকার। অন্যদিকে ওয়াকিবহাল মহলের মতে সংখ্যালঘু সংজ্ঞা বদলাতে চাইছে অসম সরকার। আর এই কারণেই তাঁরা এই পদক্ষেপ নিচ্ছে। এর আগে অসমের মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন রাজ্যে কত মুসলমান রয়েছে তা সঠিক ভাবে জানা দরকার। তবে বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টে রয়েছে এবং আমরা আদেশের জন্য অপেক্ষা করবো বলে তিনি জানান। অর্থাত্ কোনও রাজ্যে যদি হিন্দুদের জনসংখ্যা একটি সীমার কম হয়, তাহলে সে রাজ্যে তাদের সংখ্যালঘু মযাদাও দেওয়া যেতে পারে।