Date : 2022-06-26

প্রবেশিকা পরীক্ষার দাবিতে আন্দোলনে সামিল প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারা

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : প্রবেশিকা পরীক্ষার দাবিতে আন্দোলনে সামিল প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। প্রবেশিকা পরীক্ষার মাধ্যমেই স্নাতক ও স্নাতকোত্তরে পড়ুয়া ভর্তি করতে হবে। এই দাবিতে অবস্থান বিক্ষোভে পড়ুয়ারা। ২০২১ সালে করোনার জন্য হয়নি প্রেসিডেন্সিতে প্রবেশিকা পরীক্ষা। করোনার সংক্রমণ এতটাই
উর্ধ্বমূখী হয়ে যায় যে পরীক্ষার দিন ঘোষণা করেও তা বাতিল করতে হয় জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ডকে। ২০২১এ স্নাতকে পড়ুয়া ভর্তির জন্য ৭ ও ৮ অগস্ট প্রবেশিকা নেওয়ার দিন ঘোষণা করে জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড। আর স্নাতকোত্তরের পরীক্ষা দিন ঠিক হয় ১৪অগস্ট। প্রেসিডেন্সির স্নাতক ও স্নাতকোত্তরে প্রবেশিকার জন্য প্রায় ২০ হাজার পড়ুয়া নাম নথিভুক্ত করে। করোনা পরিস্থিতিকে মাথায় রেখে রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর ভার্চুয়াল বৈঠকে বসেন। সেখানেই ঠিক হয় করোনা আবহে কোনও বিশ্ববিদ্যালয় এবং অনুমোদিত কলেজ স্নাতক ও স্নাতকোত্তরে ভর্তির ক্ষেত্রে প্রবেশিকা নিতে পারবে না। তারপরই সেই বছরের পরীক্ষা বাতিল করা হয়।

চলতি বছর উচ্চ মাধ্যমিকের ফলপ্রকাশ ১০ জুন। তারপর শুরু হবে স্নাতকে ভর্তি প্রক্রিয়া। এবছর
স্নাতকে কেন্দ্রীয় ভাবে অনলাইনে ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা দফতর । মুখ্যমন্ত্রী অনুমতি নিয়েই এতে সিলমোহর দিয়েছে শিক্ষা দফতর। আসন্ন শিক্ষাবর্ষ থেকেই চালু হতে পারে এই ভর্তি প্রক্রিয়া। একটিই কমন পোর্টাল, সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় পচ্ছন্দ করা যাবে। ২রা জুন কলেজের ভর্তি প্রক্রিয়া নিয়ে সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। সেখানে কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে কেন্দ্রীয় ভাবে অনলাইনে ভর্তির বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। তবে যাদবপুর, প্রেসিডেন্সি ও রবীন্দ্রভারতী এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়কেও কেন্দ্রীয় অনলাইন প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত করা যাবে কি না সে নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। যাদবপুর ও প্রেসিডেন্সিতে প্রবেশিকা পরীক্ষার মাধ্যমে স্নাতক ও স্নাতকোত্তরে পড়ুয়া ভর্তি করা হয়। এবছর তাই কি ভাবে পড়ুয়া ভর্তি করা হবে তা কয়েকদিনের মধ্যেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

প্রবেশিকার মাধ্যমেই স্নাতক ও স্নাতকোত্তরে ভর্তি করতে হবে এই দাবিতে সরব প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। এনিয়ে ডিন অফ সায়েন্স এবং ডিন অফ আর্টস-এর সঙ্গে ছাত্র সংসদেরএকটি বৈঠক হয়। ৯জুন প্রবেশিকা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে ছাত্র সংসদকে জানান ডিন অফ সায়েন্স এবং ডিন অফ আর্টস। কিন্তু অতীত অভিজ্ঞতা এবং কর্তৃপক্ষের বর্তমান গতিবিধি মাথায় রেখে আন্দোলনকে আরও জোরদার করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পড়ুয়ারা। প্রবেশিকা পরীক্ষার জন্য আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে অ্যাডমিশন কমিটির বৈঠকের আয়োজন করতে হবে এবং সেই বৈঠকে – ছাত্র সংসদের প্রতিনিধিত্ব রাখত হবে এমনই দাবি আন্দোলনকারী পড়ুয়াদের।