Date : 2022-06-30

উচ্চমাধ্যমিকে ভালো ফল করে ইচ্ছাপূরণ আশানুর মল্লিকের।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : শিক্ষার পথে বাধা হতে পারে না আর্থিক অনটন। তা আরও একবার প্রমাণ করল উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষার্থী আশানুর মল্লিক। এবার উচ্চমাধ্যমিকে বিজ্ঞান শাখায় ৪৫১ নম্বর পেয়ে পাশ করেছে আশানুর। স্বপ্ন তাঁর ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার।

যাদবপুরের গান্ধী কলোনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র আসানূর মল্লিক। পঞ্চম শ্রেণি থেকে এই বিদ্যালয় পড়াশোনা শুরু আশানুর। পড়াশোনার প্রতি তাঁর আগ্রহ খুব অল্প দিনের মধ্যে শিক্ষকদের মন কাড়ে । এক থেকে দশের মধ্যে না থাকলেও ভালো ফল করার ইচ্ছে তার মন জুড়ে ছিল। তা সে প্রমান করেছে উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষায়। এবার উচ্চমাধ্যমিকে বিজ্ঞান শাখায় ৪৫১ নম্বর পাশ করেছে আশানুর। ভবিষ্যতে সে ইঞ্জিনিয়ার হতে চাই। ১৭জুন রাজ্য জয়েন্টের ফলপ্রকাশ। জয়েন্টেও ভালো ফল হবে বলে আশাবাদী আশানুর।

এবার উচ্চ মাধ্যমিকে পাশের হার ৮৮.৪৪ শতাংশ। পরীক্ষা হয়েছে হোম সেন্টারে। ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে কোনও রকম বাড়তি সুবিধা দেওয়া হয়নি পরীক্ষার্থীদের। সিসিটিভির মাধ্যমেও নজরদারি চলেছে বলেই জানান স্কুলের প্রধান শিক্ষক আশিস কুমার মুখোপাধ্যায়। পড়াশোনায় ভালো থাকায় শিক্ষকদের প্রিয় হয়ে উঠেছিল আশানুর। তার উচ্চ মাধ্যমিকের ভালো ফলে খুশি স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা।

বাবার সাইকেল সারাইয়ের দোকান।পরিবারের আয়ের একমাত্র বিজয়গড়ের ছোট্ট এই দোকান। মা গৃহবধূ। এককামরার ছোট্ট একটি ঘরে মা-বাবা ও দাদার সঙ্গে থাকে আশানুর। শত কষ্ট হলেও ছেলের স্বপ্ন পূরণে মরিয়া মা বাবা। উচ্চ মাধ্যমিকে ছেলে ভালো ফল করায় গর্বিত আাশানুরের মা বাবা।

নুন আনতে পান্তা ফুরোনোর সংসারে জ্বলজ্বল করছে মেধার আলো। শিক্ষার পথে আর্থিক অভাব কোনো প্রতিবন্ধকতা হতে পারে না । তাই আশানুরের স্বপ্ন আজ বাস্তব।