Date : 2022-10-01

সেজে উঠেছে বক্সা ফোর্ট। উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক ঃ উত্তরবঙ্গের পর্যটন মানচিত্রে বক্সা ফোর্টের অবস্থান অনেক আগে থেকেই সুবিদিত। পর্যটকদের কাছে একটা অন্যতম আকর্ষণীয় দ্রষ্টব্য স্থান‌ও বটে। কিন্তু ইতিহাস প্রসিদ্ধ সেই দূর্গ সময়ের নিয়মে ক্রমশঃ ধ্বংসপ্রাপ্ত হচ্ছিল। রাজ্য সরকার সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করায় বক্সা দূর্গকে ধ্বংস হ‌ওয়া থেকে রক্ষা করা গিয়েছে। আগামি বুধবার নবরূপে সজ্জিত এই দূর্গের উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সিল্ক রুটের কথা আমরা সবাই জানি। চিন থেকে ভুটান হয়ে ভারতের উত্তর অংশের ভিতর দিয়ে পশ্চিমের দেশগুলোতে রেশম আমদানি রপ্তানির ক্ষেত্রে এই রেশম পথকেই ব্যবহার করা হতো। এই সিল্ক রুটে সেই সময় ব্যবসায়ীদের নিরাপদে থাকার জন্য ভুটানের রাজারা তৈরি করেছিলেন এই দূর্গ। যদিও তখন একে ঠিক ফোর্ট বলা হতো না। এক সময় বৃটিশরা এটা অধিগ্রহণ করে ও বৃটিশ বিরোধী সবাইকে দূর্গম এই ফোর্টে চালান করে দিতো। ২,৮৪৪ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত হওয়ায় এটিকে যথার্থই দূর্গ বলে মনে হতো।

আলিপুরদুয়ার জেলা সদর থেকে প্রায় ৩০ কিঃমিঃ দুরে পাহাড়ের উপর অবস্থিত এই ফোর্ট পর্যটকদের কাছে বেশ পরিচিত। কিন্তু সময়ের মারে বক্সা জাতীয় উদ্যানের মধ্যে অবস্থিত এই ফোর্ট ক্রমশঃ ধ্বংসপ্রাপ্ত হচ্ছি‌ল। জেলা প্রশাসনের কাজ থেকে রিপোর্ট পেয়েই তৎপরতা দেখায় নবান্ন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে তথ্য ও সংস্কৃতি দফতর অর্থ বরাদ্দ করে। প্রায় ৪ কোটি ৮২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা খরচ করে এই ফোর্টের প্রথম পর্যায়ের সংস্কারের কাজ ও সৌন্দর্যায়নের কাজ শেষ করা হয়েছে। এই হেরিটেজ পর্যটন কেন্দ্রের কারাগার, গেট, সীমান্ত প্রাচীর ও দূর্গস্থিত বেশকিছু ব্যারাকের সংস্কারের কাজ ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর উত্তরবঙ্গ সফরের মধ্যে বুধবার নবরূপে সজ্জিত এই ঐতিহাসিক দূর্গের উদ্বোধন করবেন। আগামি বর্ষার পরেই পর্যটন মরসুমে বক্সা ফোর্ট পর্যটকদের কাছে আরো বেশি আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হবে বলেই মনে করছে জেলা প্রশাসনা ও জেলা পর্যটন দফতর।