Date : 2022-08-18

কোঁকড়া চুল সামলানোর ৪টি টিপস

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক: কোঁকড়া চুল দেখতে যতই সুন্দর হোক না কেন, এই চুলের যত্ন নেওয়াটা বেশ ঝক্কির। কারণ প্রকৃতিগতভাবে কোঁকড়া চুল খুব ঘন ও শক্ত হয়ে থাকে। আর চুলগুলো কোঁকড়ানো হওয়ার কারণে বিশেষত গরমের সময়ে চুলের গোড়ায় বাতাস ঢুকতে পারে না। ফলে দেখা দেয় নানা ধরনের সমস্যা। কোঁকড়ানো চুলকে সুন্দর রাখতে থাকল কিছু টিপস।

কোঁকড়া চুলে বেশিরভাগ সময়ই জট লেগে থাকে। যার কারণে চুলগুলোকে আঁচড়ানোও বেশ কষ্টকর হয়ে পড়ে। ঘরোয়া উপায়ে কোঁকড়া চুলের নানান সমস্যা কীভাবে সমাধান করা যাবে, আজ তাই নিয়েই থাকল কয়েকটি ফর্মুলা।

১. মাথার তালু পরিস্কার রাখা- যাঁদের মাথায় কোঁকড়া চুল আছে, তাঁদের অবশ্যই মাথার তালু পরিস্কার রাখা প্রয়োজন। যেহেতু এ ধরনের চুলের গোড়ায় বাতাস পৌঁছাতে পারে না, তাই মাথার ত্বক পরিস্কার না রাখলে চুলের গোড়ায় ফুসকুড়ি, খুশকিসহ নানান ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। স্নানের পর চুলগুলো ভাল করে মুছে নিতে হবে। স্নানের পর কোঁকড়া চুল ভাল করে না মুছলে চুলের গোড়ায় জল জমে থাকে। তাই স্নানের শেষে চুলগুলো ভাল করে তোয়ালে দিয়ে মুছে নিতে হবে। এরপর ফ্যানের হাওয়ায় দুই হাত দিয়ে চুলগুলো ফাঁক ফাঁক করে শুকিয়ে নিতে হবে।

২. হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার একদম না- কোঁকড়া চুল শুকনো করতে কখনই হেয়ার ড্রায়ারের ব্যবহার না। কোঁকড়া চুল প্রাকৃতিক ভাবে শুকানোই ভাল।

৩. প্রোটিন হেয়ার ট্রিটমেন্ট- ১৫ দিনে একবার প্রোটিন হেয়ার ট্রিটমেন্ট নেওয়া জরুরী। কোঁকড়ানো চুলে প্রয়োজন প্রোটিন হেয়ার ট্রিটমেন্ট। তাই ১৫ দিনে একবার ডিম, টক দই, নিমপাতা বাটা, পেঁয়াজের রস, মেথি গুঁড়ো মিশিয়ে মাথায় ৩০ থেকে ৩৫ মিনিটের মতো রাখতে হবে। পুরোপুরি শুকানোর আগেই ধুয়ে ফেলতে হবে।

৪. তেল ম্যাসাজ- চুলে রক্ত সঞ্চালনের জন্য নারকেল তেলের ম্যাসাজ খুবই উপকারী। নারকেল তেল গরম করে হাতে নিয়ে আঙুল দিয়ে বৃত্তাকারভাবে মালিশ করতে হবে। এরপর গরম জলে তোয়ালে ভিজিয়ে ভালভাবে তোয়ালে চিপে জল ঝরিয়ে মাথায় পেঁচিয়ে রাখতে হবে। এতে চুলে রক্ত সঞ্চালন বাড়ে এবং চুলের গোড়া শক্ত হয়।