Date : 2022-08-10

খাদ্য দপ্তরে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে ২০ লক্ষ টাকার প্রতারণার অভিযোগে SP র নজরদারিতে তদন্ত

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক:- খাদ্য দপ্তরে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে আইনজীবীর সঙ্গে ২০ লক্ষ টাকার প্রতারনা! ঘটনায় পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিস সুপারের নজরদারিতে তদন্তের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইোকোর্ট। ২০১৯ সালের ঘটনা। মামলাকারী তথা পূর্ব মেদিনীপুর জেলা ও দায়রা আদালতের আইনজীবী সারিফ নাওয়াজের অভিযোগ, ওই বছর কোলেমাল মার্কেটে শিতল বেরা নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। যিনি তাঁকে জানিয়েছিলেন স্নাতক কোনও প্রার্থী থাকলে শিতল সরকারি চাকরি পাইয়ে দেবেন। এরপর শিতলের মারফত সুকদেব শাসমল, ও বিজয় রায় নামে দুই ব্যক্তির পরিচয় হয় মামলাকারীর। বিজয় নিজেকে উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মী হিসাবে পরিচয় দেয়। সারিফবাবুর সঙ্গে তাঁদের চুক্তি হয়, তাঁর ভাইপো শেখ মতিউর এবং আব্দুল মতিবকে তারা খাদ্য দপ্তরে চাকরি পাইয়ে দেবে। যেজন্য সর্বসাকুল্যে তাদের ২০ লক্ষ টাকা পাঁচটি কিস্তিতে মিটিয়ে দিতে হবে। অভিযোগ, চুক্তিমতো টাকা মিটিয়ে দেওয়ার পর তাঁদের একটি নিয়োগপত্র দেওয়া হয়। কিন্তু দেখা যায় সেই নিয়োগপত্র আসলে ভুয়ো। অভিযোগ, এরপর ঘটনার বিস্তারিত তথ্য দিয়ে তমলুক থানায় অভিযোগ জানালেও কোনও সুরাহা হয়নি। টাকা উদ্ধার হয়নি বা অভিযুক্তরাও ধরা পড়েনি। শেষে বাধ্য হয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন সারিফ।

বিচারপতি শম্পা সরকারের এজলাসে বিষয়টি উঠলে উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনার পর পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিস সুপারের নজরদারিতে তদন্তের নির্দেশ দিয়ে মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন বিচারপতি শম্পা সরকার।