Date : 2022-12-02

দুষ্প্রাপ্য সামগ্রী দেখতে চান ? তাহলে আসতেই হবে ঐতিহাসিক টাউন হলে

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : দুষ্প্রাপ্য কলকাতা পুরসভার ছাপাখানার দুটি মেশিন যা ব্রিটিশ আমলে ইংল্যান্ড ও জার্মানি আনা হয়েছিল।টাউন হলের প্রদর্শনীতে সেগুলো দেখতে পাওয়া যাবে।পাশাপাশি নিলামে উঠতে চলছে ঐতিহাসিক কলকাতা পুরসভার বেশি কিছু সামগ্রীও

কলকাতা পৌরসভার কিছু স্মৃতি স্থান পাচ্ছে ঐতিহাসিক টাউন হলে। আর বেশ কিছু দুষ্প্রাপ্য সামগ্রী নিলামে উঠতে চলেছে, সম্প্রতি মেয়র পারিষদ বৈঠকে সেই প্রস্তাব পাস হয়েছে বলে পুরসভাসূত্রের খবর।

স্বাধীনতার আগে আনা হয়েছিল দুটি যন্ত্র। একটি ইংল্যান্ড থেকে ও অপরটি জার্মানি থেকে।যার বর্তমান বয়স প্রায় ১১০বছর।শেষ কবে এই মেশিন কলকাতা পুরসভায় ব্যবহার করা হয়েছিল তা হয়তো অনেকেই মনে করতে পারছেন না।শতাব্দী প্রাচীন এই যন্ত্র নিঃসন্দেহে দুষ্প্রাপ্য বলা যেতেই পারে।দীর্ঘ সময় ধরে পুরসভায় পড়ে ছিল ছাপাখানাতেই। পরে আরো বেশ কয়েকটি লেটার প্রেস মুদ্রণ যন্ত্র আনা হলেও তাদেরও বয়স খুব একটা কম নয়।তবে সেগুলোও বেশ কয়েক বছর হলো বাতিলের তালিকায়। তবে এসবের সঙ্গেই আপাদমস্তক জড়িয়ে ব্রিটিশ আমলে লিলোত্তমার পুরোনো স্মৃতি। আর তাই ইংল্যান্ড ও জার্মানি থেকে আনা সেই দুই লেটার প্রেস মেশিন এবার টাউন হলে শোভা পাবে।মেশিন দুটি সংরক্ষিত করা হবে বলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতা পৌরনিগম কর্তৃপক্ষ। উদ্দেশ্যে সেই স্মৃতি, ইতিহাস আমজনতা জানতে পারবেন।

চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে কলকাতা পুরসভার মেয়র পরিষদের বৈঠকে এই সংক্রান্ত প্রস্তাব পাস হয় বলেই সূত্রের খবর। ঠিক হয়েছে, সেই সময় ইংরেজদের আনা দুটি যন্ত্রই এন্টিক হিসেবে টাউন হলে রাখা হবে। এই সব যন্ত্রে অক্ষর বসিয়ে বসিয়ে ছাপা হত। বর্তমানে ছাপাখানায় চারটি কম্পিউটার এবং একটি অফসেট মেশিন রয়েছে। সেগুলি বদলে আধুনিক যন্ত্র নিয়ে আসা হবে।

প্রসঙ্গত,২০১২ সালে একবার এই ছাপাখানাকে আধুনিক করার উদ্যোগ নেওয়া হয়। যাদবপুরকে সার্ভের দায়িত্ব দেওয়া হয়। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় প্রায় দুই কোটি টাকার খরচের প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু তারপর আর কাজ এগোয়নি।