Date : 2022-11-29

মাদক মামলায় NCB এবং DG র হলফনামা তলব করলেন বিচারপতি জায়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : আগামী তিন মাসের মধ্যে নারকটিক কন্ট্রোল ব্যুরোর ডাইরেক্টর ও রাজ্যে পুলিশের ডিজি হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে মাদকদ্রব্য উদ্ধারের ক্ষেত্রে পূর্বে আদালত যে নির্দেশ দিয়েছিল তা মেনে কি কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

বুধবার মামলার নির্দেশ দিতে গিয়ে ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছেন NCB এবং ডিজি হলফনামায় কি কি জানাবেন।
প্রথমতঃ আদালতের নির্দেশের পর মাদক উদ্ধারের সময় এখন থেকে ভিডিওগ্রাফি করা হচ্ছে কিনা।
দ্বিতীয়ত নির্দেশের পর থেকে আজ পর্যন্ত কটি মামলায় ভিডিওগ্রাফি করা হয়েছে।
তৃতীয়ত যদি মাদক উদ্ধারের সময় ভিডিওগ্রাফি করা না হয়ে থাকে তা কেন করা হয়নি। ওই অফিসারের বিরুদ্ধে কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।
চতুর্থ আদালতের নির্দেশ মেনে মাদক উদ্ধারের সময় ভিডিওগ্রাফি সংক্রান্ত বিষয়ে কিভাবে ট্রেনিং দেওয়া হচ্ছে।
পঞ্চম বিষয় ভিডিওগ্রাফির ছবিগুলি বা তার ডাটা কিভাবে সংরক্ষিত করা হচ্ছে।

গত জুন মাসে একটি মাদক মামলার আগাম জামিন সংক্রান্ত মামলার শুনানি চলাকালীন
বিচারপতি জায়মাল্য বাগচীর ডিভিশন তদন্তে বেশ কিছু ত্রুটিপূর্ণ লক্ষ্য করেছিলেন।

বিভিন্ন সময়ে পুলিশ মিথ্যা মাদক মামলা দিয়ে অনেককে ফাঁসানো চেষ্টা করেছেন এবং বেশ কিছু মামলায় অভিযুক্ত বানাতে সফল হয়েছেন। তাই আদালত নির্দেশ জারি করেছিল এবার থেকে মাদকদ্রব্য উদ্ধারের সময় ভিডিওগ্রাফি করতে হবে। সেই নির্দেশের প্রেক্ষিতে এদিন আদালতের হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশ।

আইনজীবী মহলের একাংশের মত বিভিন্ন সময় পুলিশ স্বার্থ সিদ্ধির জন্য মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দিতেন।তাঁরা জানেন একমাত্র মাদক মামলায়তে জামিন পাওয়া কঠিন।তাই সেটাকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতেন।তবে আদালতের নজিরবিহীন নির্দেশ বহু নিরীহ মানুষের রক্ষাকবচ হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন বিচারপতি জায়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চের এই নির্দেশ।