Date : 2022-08-11

২১শের মঞ্চে অভিষেক উঠতেই থামলো সুদীপের বক্তৃতা

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক ঃ বর্ষীয়ান তৃণমূল কংগ্রেসের দীর্ঘ দিনের সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় সে সময় মঞ্চে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন। ততক্ষণে খবর ছড়িয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ২১শের মঞ্চের কাছাকাছি।ধীরে ধীরে সিঁড়ি বেয়ে মূল মঞ্চে নীল রঙের পাঞ্জাবি পরিহিত তরুণ প্রজন্মের আইকন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রিয় যুব নেতাকে দেখেই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন জনতা। হাততালি ও স্লোগানের সুর এতটাই চড়া হয়ে ওঠে যে, স্টেজে সেই সময় বক্তব্যরত সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে ভাষণ খানিক থামাতে হয়। অভিষেক হাত দেখিয়ে সেই শোরগোল থামান। জননেত্রীকে দেখতে আসা ভিড় যে অভিষেককেও আইকন মনে করেন, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তৃণমূল কংগ্রেসের যুব সমাজের মুখ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

শহিদ দিবসের মঞ্চে অপেক্ষা অনেকের। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য শোনার জন্য হাজার হাজার মানুষ জমায়েত করেছেন ধর্মতলায়। এরই সঙ্গে অপেক্ষা ছিল তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ও যুব নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। নীল পাঞ্জাবিতে সেই অপেক্ষারত জনতার সামনে ২১ শে জুলাইয়ের মঞ্চে উঠতেই বোঝা গেল অভিষেকের ‘ম্যাজিক’।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বক্তব্য রাখবেন। তার আগে অবশ্য এদিনের ঐতিহাসিক শহিদ স্মৃতি স্মরণ করতে ভোলেননি অভিষেক। ট্যুইটে শহিদদের স্মরণ করে অভিষেক লিখেছেন, ‘২১ জুলাই বাংলার ইতিহাসের পবিত্র দিন। ১৯৯৩ সালের ১৩ জন শহিদদে আমার শ্রদ্ধা জানাই। এবারের শহিদ দিবসে গর্জন আরও বাড়ান। কোনও চাপে নত হব না আমরা, আমাদের সবটুকু দেব মানুষের জন্য।’শেষ কথা মানুষই বলেন।আমরা কর্মীরা সব সময় আপদে বিপদের তাঁদের পাশে দাঁড়িয়ে থাকবো।