Date : 2022-08-10

যাদবপুর ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুকুটে নয়া পালক। দেশের সেরা দুটি বিশ্ববিদ্যালয়।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক:- দেশের সেরা দশটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের দুটি বিশ্ববিদ্যালয় কলকাতা এবং যাদবপুর। তবে র্্যাঙ্কিংয়ের কিছুটা গেছে পরিবর্তন হয়েছে। এবারের ইন্ডিয়া র‌্যাঙ্কিং ২০২২’ ন্যাশনাল ইন্ডিয়ান র‌্যাঙ্কিং ফ্রেমওয়ার্ক বা এনআইআরএফের তালিকায় চতুর্থ স্থানে যাদবপুর ও অষ্টম স্থানে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়।

এবার কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়কে কিছুটা পিছনে ফেলে বাজি মাত করেছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। গতবছর সেরার তালিকায় যেখানে চতুর্থ স্থান দখল করেছিল কলকাতা সেখানে এবার অষ্টম স্থানে কলকাতা। আর গতবারের থেকে চার ধাপ এগিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। গতবারের থেকে অবশ্য এবারে বেড়েছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর ।’ইন্ডিয়া র‌্যাঙ্কিংয়ে’ গতবার ছিল ৬২.০৬ স্কোর আর এবার সেই স্কোর দাঁড়িয়েছে ৬২.২৩। আর যেখানে গতবার ‘ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর ছিল ৬০.৩৩ ।সেখানে এবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর ৬৫.৩৭ হয়েছে। যাদবপুরের সাফল্যে খুশি পড়ুয়া থেকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রত্যেকেই।

দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাঙ্কিং এ প্রথম দশটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম হল-ইন্ডিয়ান ১)ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স, বেঙ্গালুরু,২)জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়,৩)জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়,৪) যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়,৫)অমৃত বিশ্বপীঠ,৬)বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়, ৭)মণিপাল অ্যাকাডেমি,৮)কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়,৯)ভেল্লোর ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি, ভেল্লোর,১০)হায়দরাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়।
রাজ্যের দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাফল্যে অভিনন্দন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, এনআইআরএফ ২০২২ ইন্ডিয়া র‍্যাঙ্কিং অনুসারে, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ভারতের সমস্ত রাজ্য সাহায্যপ্রাপ্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে প্রথম এবং দ্বিতীয় অবস্থানে যেমন রয়েছে, তেমনি কলেজগুলোর মধ্যে সেন্ট জেভিয়ার্স দেশের মধ্যে অষ্টম । এই সাফল্যে মুখ্যমন্ত্রী ছাত্রদের অভিনন্দন জানিশেছেন। রাজ্যের শিক্ষার সাফল্যে যথেষ্ট গর্ববোধ করছেন তিনি বলেও জানান।

শুধুমাত্র দুটি বিশ্ববিদ্যালয় নয়। এই সমীক্ষায়
কলেজগুলোর মধ্যে অষ্টম স্থানে রয়েছে রাজ্যের সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ, কলকাতা। নবম স্থানে বেলুড় রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যামন্দির। আর শ্রেষ্ঠ গবেষণা সংস্থার মধ্যে রয়েছে আইআইটি খড়গপুর।