Date : 2022-08-10

ডেঙ্গির প্রকোপ সামলাতে সচেষ্ট নবান্ন। বৈঠক সারলেন মুখ্যসচিব

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : শুক্রবার ডেঙ্গি প্রতিরোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করলেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। নবান্নের এই বৈঠক থেকে ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়া সহ মশাবাহিত রোগের প্রাদূর্ভাব আটকাতে দেওয়া হয়েছে বেশকিছু নির্দেশিকা।

রাজ্যে এখন ভরা বর্ষার মরসুম। যদিও উত্তরবঙ্গের তুলনায় দক্ষিণবঙ্গে এখনও তেমন বৃষ্টি হয় নি। তবে বর্ষার মরসুম মানেই রাজ্যের বিশেষ কয়েকটি জেলায় মারাত্মক ডেঙ্গির প্রভাব দেখা যায়। যার মধ্যে অন্যতম দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলী, নদীয়া, মূর্শিদাবাদ, মালদহ ও দার্জিলিং জেলা। এদিনের বৈঠকে ভার্চুয়ালি উপস্থিত ছিলেন এই আট জেলার জেলাশাসক। পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য, স্বরাষ্ট্র, অর্থ দফতর, স্কুল শিক্ষা দফতর, সেচ, পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর, পূর্ত, পঞ্চায়েত, জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতর সহ কলকাতা পুরসভার কমিশনার, বিধাননগর ও কলকাতার পুলিশ কমিশনার। সূত্রের খবর বৈঠকে মুখ্যসচিব ডেঙ্গি সহ মশাবাহিত বিভিন্ন রোগ সম্পর্কে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন সকলকে। বেশকিছু সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ‌ও দিয়েছেন তিনি। জেলার যে সব এলাকা থেকে ডেঙ্গি বা ম্যালেরিয়া রোগের খবর পাওয়া যাচ্ছে সেই সব এলাকার প্রতি বিশেষ নজর দিতে হবে বলে জেলাশাসকদের জানানো হয়েছে। প্রয়োজনে জেলাশাসকরা যাতে নিজেরা সরেজমিনে এলাকা পরিদর্শন করেন, বলা হয়েছে সেটাও।
সেচ দফতরের আওতাধীন যেসব নালা বা ছোটো খাল রয়েছে সেখানে যাতে জল জমে না থাকে, পুর এলাকাগুলোর নর্দমা যাতে নিয়মিত পরিষ্কার করা হয়, এইসব বিষয়েও নিয়মিত নজরদারি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেই খবর। এদিকে অনেকদিন পর আবার স্কুল, কলেজ খুলেছে। নিয়মিত ক্লাস‌ও শুরু হয়েছে। ফলে স্কুল, কলেজগুলো যাতে নিয়মিত পরিষ্কার রাখা হয় সেটা দেখার জন্য স্কুল শিক্ষা দফতরকে আলাদা করে বলে দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে স্কুল, কলেজগুলোতে জলের ট্যাঙ্ক নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে বলেও জানানো হয়েছে। স্কুল কলেজ থেকে শুরু করে পুর এলাকায় নির্দিষ্ট সময় অন্তর ব্লিচিং পাউডার ছড়াতে হবে। শুক্রবারের বৈঠকে হাওড়া ও উত্তর ২৪ পরগণার কিছু এলাকা অধীক ডেঙ্গি প্রবণ বলে সেই সব এলাকার দিকে বেশি নজর দেওয়ার জন্যে জেলাশাসকদের জানিয়েছেন মুখ্যসচিব। পাশাপাশি কলকাতার পুর কমিশনারকেও বস্তি এলাকায় নিয়মিত সাফাই অভিযান ও ব্লিচিং পাউডার ছড়ানোর বিষয়ে অবহিত করেন তিনি। এদিকে সারা দেশের সঙ্গে রাজ্যেও কোভিড আবার নতুন করে চোখ রাঙাচ্ছে। যদিও আমাদের রাজ্যের ক্ষেত্রে তা এখন‌ই অ্যালার্মিং সিচুয়েশনে পৌঁছায় নি। তবু কোনরকম ঢিলেমি না দিয়ে সচেতনা বাড়াতে বলা হয়েছে। জোর দেওয়া হয়েছে মাস্কের ব্যবহার বাড়ানোর দিকেও।