Date : 2022-11-29

সরিয়েও সরেননি পার্থ। নবান্নের খাতায় পার্থ এখনও মন্ত্রী।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : নিয়োগ দুর্নীর্তির মামলায় গ্রেফতার হ‌ওয়ার পর থেকে এখনও ইডি হেফাজতে রয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ২৩ জুলাই গ্রেফতার হ‌ওয়ার পর ২৮ জুলাই রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকের অব্যবহিত পরেই তাঁকে রাজ্য মন্ত্রিসভা থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সেকথা জানিয়েও দেয় নবান্ন। কিন্তু সেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম এখনও বহাল তবিয়তেই রয়েছে নবান্নের খাতায়।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় নামক অস্বস্তি এড়াতে মন্ত্রিসভা থেকেই তাঁকে অপসারণ করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইচ্ছাতেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাতে থাকা সবকটি দফতর থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় তাঁকে। গত ২৮ তারিখ রাজ্য মন্ত্রিসভা বৈঠকের পরেই নবান্ন থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অপসারণ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া হয়। এমনকি মন্ত্রিসভা বৈঠকের কিছুটা পরেই “সৌজন্য”-তে একটি শিল্প বিষয়ক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে মুখ্যমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অপসারণের খবরে সিলমোহর দিয়ে বলেন, “পার্থদার কাছে যা যা ডিপার্টমেন্ট গুলো ছিলো সেগুলো আমার কাছে আসছে। আমি হয়তো কিছুই করবো না কিন্তু যেহেতু এখন নতুন করে মন্ত্রীসভা গঠন করছি না আমি পার্থদাকে রিলিভ করেছি।” তার কিছুটা পরে তৃণমূল ভবনেও সাংবাদিক সম্মেলন করে দলের সব পদ থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে সাসপেন্ড করার খবর জানান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিকে গত ২৮ তারিখ মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষ হ‌ওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে জানা যায় মুখ্যমন্ত্রী চারদিনের মাথায় ১ আগষ্ট সোমবার আবার একটি মন্ত্রিসভার বৈঠক ডেকেছেন। সচরাচর একটি মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর পরবর্তী মন্ত্রীসভার বৈঠক হয় পনেরো দিন পর। তবে বিশেষ কারণ থাকলে মুখ্যমন্ত্রী নিজের পদাধিকারবলে তার আগেই মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠক ডাকতে পারেন। এক্ষেত্রে চারদিনের মাথায় আবার মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকায় বেশকিছু জল্পনা তৈরি হয়েছে। কিন্তু গোলোযোগ হয়েছে অন্য জায়গায়। মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকা সংক্রান্ত ২৮ জুলাইয়ের কাগজ থেকে দেখা যাচ্ছে ১ আগষ্ট, বিকাল ৩ টায়, নবান্নের ক্যাবিনেট হলে ২৯ তম রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে মুখ্যসচিবের স্বাক্ষরিত চিঠিতে বিষয়টির পরিষ্কার উল্লেখ রয়েছে। বৈঠকে রাজ্যের সব মন্ত্রীদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।

কিন্তু মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর বেলা ৩.১৫ মিনিটে শিল্প বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির যে বৈঠক ডাকা হয়েছে ওই নবান্নের ক্যাবিনেট হলে, সেই বৈঠকের চিঠি যাঁদের যাঁদের ‘কপি ফর‌ওয়ার্ড’ করা হয়েছে সেই নামের তালিকায় প্রথমেই রয়েছে ডঃ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম। এদিকে ইতিমধ্যেই গত ২৮ তারিখেই তাঁকে মন্ত্রিসভা থেকে অপসারণ করা হয় এবং নবান্ন ও বিধানসভায় তাঁর ঘরের দরজা থেকে নামের ফলক খুলে ফেলা হয়। তারপরেও কী করে শিল্প বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির এই বৈঠকের চিঠিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম থাকল তা নিয়ে কিঞ্চিৎ চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে নবান্নে। যদিও সচিবালয়ের এক আধিকারিকের বক্তব্য এটা একদমই অনিচ্ছাকৃত ভুল। আসলে এটার একটা ফর্ম্যাট থাকে। সেটাতেই শুধু তারিখ বদলে দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে যেহেতু ওইদিনই (২৮ জুলাই) একটা মন্ত্রিসভার বৈঠকের ঠিক পরপরই চার দিনের মাথায় পরবর্তী মন্ত্রিসভার বৈঠকের চিঠি তৈরি করা হয়েছে, তখনই হয়তো তাড়াহুড়োতে এই ভুলটা থেকে গিয়েছে।