Date : 2022-08-10

স্কুল ড্রেসের দেরি নিয়ে শিক্ষা দফতরকে চিঠি শিক্ষক সংগঠনের

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : চলতি শিক্ষাবর্ষে জানুয়ারি থেকে জুলাই সাত মাস হয়ে গেল নতুন শিক্ষাবর্ষের ক্লাস শুরু । এখনও পড়ুয়ারা হাতে পাইনি নয়া স্কুল ইউনিফর্ম। এনিয়ে শিক্ষা দফতরকে চিঠি দিল প্রধান শিক্ষক শিক্ষিকাদের সংগঠন। স্কুল ইউনিফর্ম তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি রাজ্যের সব সরকারি ও সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত স্কুলে পৌঁছে যাবে নীল সাদা রঙের নতুন স্কুল ড্রেস। বক্তব্য শিক্ষা দফতরের আধিকারিকদের।

করোনার সংক্রমণ নিম্নমুখী হতেই ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। প্রায় দু বছর পর চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে শুরু হয়েছে অফলাইনে পঠনপাঠন। চলতি শিক্ষাবর্ষে জানুয়ারি থেকে জুলাই সাত মাস হয়ে গেল নতুন শিক্ষাবর্ষের ক্লাস শুরু । কিন্তু এখনও পড়ুয়ারা পাননি স্কুলের নতুন পোশাক। করোনা আবহে দু বছর পর স্কুলে আসতে শুরু করেছে পড়ুয়ারা। স্কুলের নতুন পোশাক না পাওয়ায় পুরোনো পোশাক পরেই স্কুলে আসতে হচ্ছে তাদের। অনেকের পোশাক নষ্ট হয়েছে অনেকের আবার পোশাক ছোটো হয়ে গেছে। চলতি বছর থেকে প্রতিটি সরকারি ও সরকার সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলের পড়ুয়াদের স্কুল ড্রেস নীল সাদা করার কথা ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিকের পড়ুয়াদের এই পোশাক দেওয়া হবে। ছাত্রদের নীল প্যান্ট ও সাদা জামা এবং ছাত্রীদের জন্য পোশাক সাদা জামা, নীল স্কাট বা টিউনিক ফ্রক এবং নীল সাদা সালোয়ার-কামিজ -ওড়না। ইউনিফর্মে থাকবে বিশ্ব বাংলার লোগো। রাজ্য সরকারের তরফে এমনই একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। তবে সাত মাস শেষ হতে চললেও এখনও পোশাক পাইনি পড়ুয়ারা। বারবার মাপ নিয়ে যাওয়া হলেও পোশাক মিলছেনা বলে অভিযোগ প্রধান শিক্ষক শিক্ষিকা সংগঠনের।প্রধান শিক্ষক শিক্ষিকা সংগঠনের পক্ষ থেকে পড়ুয়াদের পোশাক দেরির কথা জানিয়ে শিক্ষাদফতরে চিঠি দেওয়া হয়েছে। শিক্ষা দফতরের এক আধিকারিকের বক্তব্য, স্কুল ড্রেস তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেছে। মাপ নেওয়ার পাশাপাশি রাজ্যের বেশ কয়েকটি স্কুলে পৌঁছেও গেছে স্কুল ড্রেস। খুব তাড়াতাড়ি রাজ্যের সমস্ত সরকারি ও সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত স্কুলের পড়ুয়ারা স্কুল ড্রেস পেয়ে যাবেন।