Date : 2022-08-10

রোহিঙ্গাদের এখনই মায়ানমারে পাঠানো যাবে না নজিরবিহীন নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়,সাংবাদিক:- দমদম জেলে বন্দি মায়ানমারের রোহিঙ্গাদের আদালতের নির্দেশ ছাড়া কোথাও তাদের পাঠানো যাবে না নির্দেশ হাইকোর্টের।

পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের বাঁচার অধিকার যাতে কোনোভাবে খর্ব না হয় তা জেল কর্তৃপক্ষকে নিশ্চিত করতে হবে নির্দেশ বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের।

বৃহস্পতিবার মামলাকারিদের পক্ষের আইনজীবী আফরিন বেগম আদালতে জানান শিশুসন্তান সহ চার মায়ানমারের রোহিঙ্গা মহিলা মায়ানমার হয়ে বাংলাদেশ আসে ২০১৬ সালে।২০শে জানুয়ারি ২০১৬ সালে মালদহ হয়ে ভারতে প্রবেশ করার সময় তাঁরা ধরা পড়েন।আদালতের নির্দেশে বাচ্চাদের বিভিন্ন হোমে রাখা হয়েছে।মোট ১৩,জন শিশু।মালদহ জেলা আদালত চারজন রোহিঙ্গা মহিলাদের সাড়ে তিন বছর জেল হেফাজতের নির্দেশের পাশাপাশি ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বর্তমানে তাঁরা দমদম সংশোধনাগারের রয়েছেন।আগামী ৫ই অগাস্ট তাঁদের জেল হেফাজতে র মেয়াদ শেষে ফের তাঁদের মায়ানমারে পাঠিয়ে দেওয়া হবে বলে জানতে পারেন। মুসলিম রোহিঙ্গারা ভারতেই থাকতে চায়।ফিরতে চায় না মায়ানমারে।

ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করার পর ধরা পড়েন। তখন থেকেই তারা দমদম সংশোধনাগারে বন্দী। আগামী কাল মায়ানমারে চালান করা হবে বলে মৌখিক ভাবে তারা জানতে পারে। এর পরই তারা জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আবেদন জানান কলকাতা হাই কোর্টে। যদিও কেন্দ্র এবং রাজ্য উভয় সরকারের পক্ষ থেকে জানিয়েছেন এমন কোনো পরিকল্পনা তাদের নেই।

উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনার বিচারপতি জানান এমন কোনো সিদ্ধান্ত হয় থাকলেও আদালতের নির্দেশ ছাড়া তা কার্যকর করা যাবে না। পাশাপাশি তাদের ‘রাইট টু লাইফ ‘ বা বাঁচার অধিকার যাতে কোনোভাবে খর্ব না হয় তা জেল কর্তৃপক্ষকে নিশ্চিত করতে হবে।
আগামী ১০ই আগস্ট মামলার পরবর্তী শুনানি।