Date : 2022-09-27

উকুন সমস্যার মুক্তি-মন্ত্র

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক- চুল ওঠা, খুশকি, রুক্ষ চুলের সমস্যা ছাড়াও চুলের আরও একটি বড় সমস্যা হল উকুন। তবে এমন কিছু ঘরোয়া উপায় আছে, যার সাহায্যে আপনি সহজেই উকুন তাড়াতে পারেন। এখন জেনে নিন, কোন কোন ঘরোয়া উপায়ে উকুন দূর করা যেতে পারে।
১) টি-ট্রি অয়েল- আপনি এসেনশিয়াল অয়েলের সাহায্য নিতে পারেন। এসেনশিয়াল অয়েলের সাহায্যে সহজেই উকুন দূর করতে পারেন আপনি। কিন্তু কীভাবে এই পদ্ধতি কাজে লাগাবেন? তাও আপনার জানা দরকার। আসলে টি ট্রি অয়েল এই ক্ষেত্রে বেশ কার্যকরী। এই টি-ট্রি অয়েলে আছে অ্যান্টি ফাঙ্গাল ও অ্যান্টি মাইক্রোবায়াল উপাদান। যার সাহায্যে আপনি উকুন বা অন্যান্য ব্যাকটেরিয়াও নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। এই টি ট্রি অয়েল উকুন ও উকুনের ডিম নষ্ট করে দিতে বেশ কার্যকরী।
• কীভাবে ব্যবহার করবেন?
আপনার স্ক্যাল্পে কয়েক ফোঁটা টি ট্রি অয়েল নিন। সেটি ভাল করে মাথায় ম্যাসাজ করে নিন। যেন প্রত্যেক জায়গায় ভাল করে এই টি ট্রি অয়েল পৌছে যায়। এবার আপনার চুল বেঁধে রাখুন। অন্তত ২-৩ ঘণ্টা এভাবেই রেখে দিন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এক মাসে প্রতি সপ্তাহে একবার করে এটা করুন।

২) ব্লো- ড্রাই করুন- এই ঘরোয়া পদ্ধতিতেও যে উকুন দূর করা সম্ভব। ব্লো ড্রায়ারের সাহায্যেও চুল থেকে উকুন দূর করা যেতে পারে। শুধুই স্টাইলিং করা নয়, বরং এই কাজেও ব্যবহার করা যায় ব্লো- ড্রায়ার।
• কীভাবে ব্যবহার করবেন?
উকুন দূর করার জন্য এই ব্লো ড্রায়ার সরাসরি আপনার চুলে ব্যবহার করতে হবে। তবে তাপমাত্রার দিকেও লক্ষ্য রাখুন। হেয়ার ড্রায়ার অন করে তা চুলে ধরুন। সামান্য তাপমাত্রা রাখবেন। অতিরিক্ত গরম করবেন না। এতে স্ক্যাল্প ও চুলের ক্ষতি হবে।
এর সাহায্যে আপনার চুল থেকে উকুন দূর করতে পারেন। বেশ কিছুক্ষণ ব্লো ড্রাই করুন। তারপর ভাল করে চুল আঁচড়ে নিন।
৩)অলিভ অয়েল- চুলের যত্ন নেওয়ার জন্য এমনিই অলিভ অয়েল ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। এই অলিভ অয়েল কাজেও দেয় বেশ। চুলের আর্দ্রতা ধরে রাখার জন্য এই অলিভ অয়েল যেমন কাজে দেয় তেমনই উকুন দূর করতেও এই অলিভ অয়েল খুব কাজে দেয়।
• কীভাবে ব্যবহার করবেন?
বেশ খানিকটা পরিমাণে অলিভ অয়েল নিন। চুলের দৈর্ঘ্য বুঝেই তেল নেবেন। সেটি স্ক্যাল্পে ভাল করে ম্যাসাজ করে নেবেন। এরপর চুলেও ভাল করে লাগিয়ে নিন। এবার আপনার চুল ভাল করে বেঁধে রাখুন। শাওয়ার ক্যাপ মাথায় পড়ে ঘুমোতে চলে যান। পরের দিন সকালে উঠে একটি সরু দাঁতের চিরুনি নিন। সেটি দিয়ে ভাল করে চুল আঁচড়ে নিন। স্ক্যাল্পেও চিরুনি চালিয়ে নিন। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। প্রতি সপ্তাহে অন্তত একবার এই পদ্ধতি মেনে চলুন। কাজ হবে।
৪) নিম পাতা- উকুন দূর করতে নিম বেশ কার্যকরী, তা কিন্তু বিজ্ঞানসম্মতভাবেও প্রমাণিত। নিম উকুন দূর করতে খুব ভাল কাজে দেয়। এই কথা আমরা কম বেশি সবাই জানি। নিম তেলও ব্যবহার করতে পারেন উকুন হলে। আবার নিম পাতার পেস্টও স্ক্যাল্প এবং চুলে লাগিয়ে নিতে পারেন। দুটো পদ্ধতিতেই কাজ হবে খুব ভাল।
• কীভাবে ব্যবহার করবেন?
এক কাপে নিম পাতা নিন। সেটি ভাল করে ফুটিয়ে নিন। সেই জল রেখে দিন। এদিকে পাতাগুলো পেস্ট করে নিন। এই মিশ্রণ ভাল করে আপনার স্ক্যাল্পে লাগিয়ে নিন। চুলেও লাগিয়ে নেবেন। ২ ঘণ্টা রেখে দেবেন। তারপর নিম জল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

প্রতি সপ্তাহে একবার করে এই পদ্ধতি মেনে চলুন।
উকুন দূর করতে বেশ কিছু নিয়ম আপনাকে মেনে চলতে হবে। মাথায় একবার উকুন চলে এলে তা দূর করা খুব কষ্টের। সহজে উকুন দূর করা যায় না। তাই আগে থেকেই কয়েকটি নিয়ম মেনে চলা উচিত আমাদের সবার।
A) অন্যের বা অপরিচিত কারও ব্যবহৃত ও অপরিষ্কার তোয়ালে ব্যবহার করবেন না।
B) অন্যের অপরিস্কার চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়াবেন না।
C) স্ক্যাল্প পরিস্কার রাখুন।
D) নিয়মিত শ্যাম্পু করুন ও চুলের যত্ন নিন।
E) উকুনের সমস্যা মারাত্মক হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
আপনার চুলে কোনও সমস্যা থাকলে বা চিকিৎসা চললে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোনও ঘরোয়া টোটকা কাজে লাগাবেন না। আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন ও তারপর এই ঘরোয়া টোটকা কাজে লাগান।