Date : 2022-09-27

আধিকারিকদের কাজের মূল্যায়ন সরকারের।আইএএস অফিসারের তালিকা মুখ্যমন্ত্রীর হাতে তুলে দিলেন মুখ্যসচিব।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : বুধবার ছিলো রাজ্য স্তরীয় প্রশাসনিক বৈঠক। সেই বৈঠকের ফাঁকে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে বেশকিছু আইএএস আধিকারিকের নামের তালিকা তুলে দেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। যে তালিকা নিয়ে প্রশাসনিক মহলে ছড়িয়েছে জল্পনা।

সাধারনত প্রতি আর্থিক বছরে একবার করে প্রতিটি সরকারি কর্মচারির কাজের মূল্যায়ন রিপোর্ট তৈরি করা হয়। সেই রিপোর্টে মূলতঃ নির্দিষ্ট কর্মি সারাবছর কেমন কাজ করেছেন তার বিস্তারিত তথ্য থাকে। ডব্লুবিসিএস অফিসারদের কাজের মূল্যায়ন সংক্রান্ত রিপোর্ট কার্ড তৈরি করেন তাঁর বিভাগীয় সচিব। তিনি সেই রিপোর্ট তুলে দেন মুখ্যসচিবের কাছে। আবার আইএএস আধিকারিকের কাজের রিপোর্ট তৈরি করেন মুখ্যসচিব। তিনি তা তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রীর হাতে। এটা একটা নিরন্তর প্রসেস। এটাকে বলা হয় অ্যানুয়াল কনফিডেন্সিয়াল রিপোর্ট (বা ACR)। কেন্দ্রিয় সরকারি আধিকারিকদের ক্ষেত্রে এই রিপোর্ট কার্ডকে বলে অ্যানুয়াল পারফরমেন্স রিপোর্ট ( বা APR)। সম্প্রতি কেন্দ্রিয় সরকার ৫৫ বছরের উপরে থাকা আধিকারিকদের জন্য এই রিপোর্টের উপর নির্ভর করে কিছু কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সেটা হলো যাদের এপিআর এ নেগেটিভ রিমার্ক্স (Remarks) থাকছে তাদের জন্য স্বেচ্ছাবসর (VRS) এর দাওয়া‌ই এর কথা বলা হয়েছে। এখন প্রশ্ন উঠছে রাজ্য সরকার ও কি সেই পথেই হাঁটবে? বুধবার মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী মুখ্যমন্ত্রীর হাতে আধিকারিকদের একটি তালিকা তুলে দেওয়ায় সেই জল্পনা ছড়িয়েছে। যদিও নবান্ন সূত্রে খবর মুখ্যসচিব যে তালিকা মুখ্যমন্ত্রীর হাতে তুলে দিয়েছেন সেই তালিকায় যাদের নাম রয়েছে তাঁরা কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। অর্থাৎ তালিকায় থাকা আধিকারিকরা যথেষ্ট ভালো কাজ করেছেন গত এক বছরে। কিন্তু তালিকার বাইরে থাকা আধিকারিকদের কি হবে ? বিশেষ করে যাদের বয়স ৫৫ বছরের উর্ধ্বে। যদিও এই প্রসঙ্গে মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী বুধবার এক প্রশ্নের উত্তরে জানিয়েছেন “আইএএস, আইপিএস বা ডব্লুবিসিএস আধিকারিকদের কাজের মূল্যায়ন তো সব সময় করা হয়। এটা একটা রুটিন কাজ। অ্যাপ্রাইজাল (Appraisal) এর জন্য এটা করা হয়।” সূত্রের খবর, তালিকা হাতে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীও বলেন এটা ভালো হয়েছে। কেন্দ্র‌ও এমন করছে। নবান্নে কর্মরত এক আধিকারিকের অবশ্য বক্তব্য, মুখ্যসচিব যেটা বলেছেন সেটা অবশ্যই সঠিক, তবে তালিকার বাইরে থাকা আইএস‌এস অফিসারদের বিষয়ে রাজ্য সরকারের মনোভাব যতক্ষণ না প্রকাশ পাচ্ছে ততক্ষণ নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যায় না। তবে ওই আধিকারিক এটাও বলেন যে রাজ্যে অভিজ্ঞ আইএএস আধিকারিকের সংখ্যা যথেষ্ট নয়, ফলে কেন্দ্রের দেখানো পথে এই মুহূর্তে রাজ্য না‌ও হাঁটতে পারে।