Date : 2022-12-03

১৪৪ ধারা অমান্য করা যাবে ,সে বিষয়ে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।টেট আন্দোলন মামলায় রায় হাইকোর্টের

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুলিশ মোতায়েন করতে হবে যাতে পর্ষদের কর্মীদের অফিসে ঢুকতে বেরোতে কোন অসুবিধা না হয় তা নিশ্চিত করবেন বিধাননগর পুলিশ কমিশনার এবং জেলা মুখ্য বিচারক।

সল্টলেকে পর্ষদের এপিসি ভবনের সামনে গত সোমবার থেকে আমরণ অনশন শুরু করেছেন ২০১৪ সালের টেট চাকরিপ্রার্থীরা
বৃহস্পতিবারও আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হল পর্ষদ। এর আগেও বুধবার হাই কোর্টে মামলাটির দ্রুত শুনানির আর্জি জানিয়েছিল পর্ষদ। তার জবাবে আদালত পাল্টা প্রশ্ন করেছিল, ”দ্রুত শুনানির কী প্রয়োজন?”
বৃহস্পতিবার সেই আন্দোলন চতুর্থ দিনে পড়ল। চাকরিপ্রার্থীদের এই বিক্ষোভ, অনশন নিয়েই কলকাতা হাই কোর্টের দৃষ্টি আকর্ষণ করে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। বৃহস্পতিবার তারা বিষয়টির দ্রুত শুনানিরও আর্জি জানায়। কিন্তু হাই কোর্টের বিচারপতি লপিতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই আর্জি মেনে মামলা শুনানি করেন।

পর্ষদের আইনজীবী জানান যেখানে অনশন ধারণা চলছে সেটা অত্যন্ত জনবহুল এলাকা।সেখানে হাসপাতাল, অফিস, স্কুল রয়েছে।চাকুরি প্রার্থীদের বিক্ষোভের জেরে অচলাবস্থা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।
বিচারপতি লাপিতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন কেন আপনার (পুলিশ নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না)। পুলিশ কি পাওয়ারলেস ? ১৪৪ধারা জারি করা সত্ত্বেও তাঁদের সেখানে অবস্থানে বসে আছেন।পুলিশ কি করছে?

পর্ষদের আইনজীবী জানায় শুধু চাকুরি প্রাথীরা নয়, আন্দোলনকারীদের সন্তানদের সেখানে নিয়ে আন্দোলন করছেন।তাই পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও কোন কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারছে না।পুলিশ মাইকিং করছেন বারংবার কিন্তু আন্দোলনকারীরা নিজেদের অবস্থানে অনড়।এপিসি ভবন সামনে(প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ)অফিসের সামনে বিক্ষোভ, অনশন কর্মসূচি জন্য পর্ষদের অফিসে প্রবেশ করতে পারছেন না অভিযোগ পর্ষদের।
বৃহস্পতিবারও আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ জানিয়ে পর্ষদের আইনজীবী বলেন, পর্ষদের সামনে লাগাতার বিক্ষোভের জেরে অফিস প্রায় বন্ধ হতে বসেছে। প্রতি দিনের স্বাভাবিক কাজ করা যাচ্ছে না। তাই মামলাটির দ্রুত শুনানি হোক।
এদিন পর্ষদ ছাড়াও এই একই আবেদন করেছিলেন পর্ষদের অন্য একটি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীদের আইনজীবী। এপিসি ভবনে তাঁদের চাকরির ইন্টারভিউ রয়েছে। আদালতকে তাঁরা জানিয়েছিলেন, টেট বিক্ষোভের জেরে তাঁরা ভিতরে ঢুকতে পারছেন না।