Date : 2022-12-06

নজরে পঞ্চায়েত নির্বাচন! উত্তরের বিজয়া সম্মিলনীতে তিরিশ হাজারি উপস্থিতিতে নজিরবিহীন জমায়েত।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : বরাবরই উত্তরবঙ্গের জন্য আলাদা চমক রাখেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর চারদিনের এবারের সফরেও তার অন্যথা হলো না। সফরের তৃতীয় দিন উত্তরবঙ্গের আটটি জেলা নিয়ে একযোগে বিজয়া সম্মিলনী হলো তাঁর উপস্থিতিতে।

কয়েকদিন আগের কথা। নবান্নের প্রেস কর্ণারে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর সঙ্গে ছিলেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। তখনই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিলো আপনি উত্তরবঙ্গে যাবেন কি না।

উদ্দেশ্য ছিলো তিনি মালবাজরে দূর্ঘটনাগ্রস্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন কি না সেটা জানা। মুখ্যমন্ত্রী বললেন, তিনি যাবেন। তবে দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। তখনই তিনি এটাও জানান যে দক্ষিণবঙ্গে রেড রোড কার্নিভাল করা হয়েছে। কিন্তু উত্তরবঙ্গের মানুষজন‌ও তেমন কিছু চায়।

যদিও এবার জেলায় জেলায় বিসর্জন কার্নিভাল করা হয়েছে। তবে এবার গেলে সমগ্র উত্তরবঙ্গের জন্য একটা কিছু করা হতে পারে। দেখা গেল সেই হিসাবেই উত্তরের সবকটি জেলা নিয়ে বিজয়া সম্মিলনীর আয়োজন করা হয়েছে। প্রশাসনের আধিকারিক থেকে শুরু করে উত্তরবঙ্গের মন্ত্রী, সমাজের বিশিষ্টজন, শিল্পপতি, বনিকসভার প্রতিনিধি সবাইকেই এই সম্মিলনী তে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এছাড়া উত্তরবঙ্গের প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার থেকে ছয় হাজার পুজো কমিটির পাঁচ জন করে প্রতিনিধিও উপস্থিত ছিলেন।

সব মিলিয়ে প্রায় হাজার তিরিশেক মানুষের উপস্থিতিতে নজিরবিহীন বিজয়া সম্মিলনীর সাক্ষী থাকলো শিলিগুড়ির অদুরের কাওয়াখালি ময়দান। তবে এই বিশাল আয়োজন নিয়ে কিছুটা কটাক্ষের সুর শোনা গিয়েছে বিরোধীদের মুখে। বিশেষ করে বিজেপির বিধায়কদের মুখে। তাঁদের বক্তব্য মুখ্যমন্ত্রী সবার মুখ্যমন্ত্রী হতে পারলেন না এত বছরেও। সবেতেই ওনার রাজনীতি। প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠকে তো আমন্ত্রণ করেন‌ই না। এবার বিজয়া সম্মিলনীর মতো সৌহার্দ্যপূর্ণ অনুষ্ঠানেও উত্তরের বিজেপি বিধায়ক বা সাংসদদের ডাকা হলো না।