Date : 2022-12-03

একেই বলে যার কেউ নেই তাঁর ওপর ওয়ালা আছেন!২০১৪ টেট ‘অনুত্তীর্ণ’ প্রার্থীদের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের সুযোগ দিলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক:- তিনি কখনো দুর্নীতির বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছেন, কখনোবা মানবিকতা পরিচয় দিয়ে দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত পাশে দাঁড়িয়েছেন।কখনও তিনি শিশুর চিকিৎসার জন্য লড়েছেন আবার বৃদ্ধের অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছেন।তিনি আর কেউ নন তিনি হলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।

অনুত্তীর্ণরাও যে সুযোগ পেতে পারেন তাঁর পথ দেখালেন সেই বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।৫ জন ‘অনুত্তীর্ণ’ চাকরিপ্রার্থীকে সুযোগ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এই ৫ জন ২০২২-এর প্রাথমিক শিক্ষকের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ গ্রহণ করতে পারবে। ফর্ম পূরণ করার অনুমতি দিয়েছেন।

মামলার বয়ান অনুযায়ী ২০১৪ সালের টেটে এই প্রার্থীরা ১৫০ এর মধ্যে ৮২ নম্বর পেয়েছেন। ফলে তাঁরা গড়ে ৫৪.৬৭ শতাংশ নম্বর পেয়েছে। নিয়ম অনুসারে ৫৪.৬৭-কে ৫৫ নম্বর হিসাবে গণ্য করতে হবে।এবং ৫৫ পেলেই এরা যোগ্য প্রার্থী হিসাবে মান্যতা পাবেন। মামলাকারীদের আরও দাবি, ২০১৪ সালে ৬টি প্রশ্ন ভুল ছিল, যা নিয়ে মামলা ডিভিশন বেঞ্চে বিচারাধীন রয়েছে।

বলে রাখা দরকার টেট পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা আর সহজ হয়ে গেল।টেটে বসার যোগ্যতামান আরও শিথিল করল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। ২৩ অগাস্ট ২০১০-এর আগেই স্নাতক ডিগ্রি থাকলেই বসা যাবে টেটে। ২৪ অগাস্ট ২০১০-এর পরবর্তী সময়ে স্নাতকে ৪৫% ও সংরক্ষিত প্রার্থীদের ৪০% স্নাতকে থাকলেই হবে।