Date : 2022-12-03

বোলপুর শান্তিনিকেতনে বই প্রকাশনী অনুষ্ঠানে স্বয়ং উপস্থিত ছিলেন কালী।

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিক: হেমন্তের মিঠে রোদ। উত্তরে হাওয়ার কাঁপন। আর এমন পরিবেশেই বোলপুর শান্তিনিকেতনের রতনপল্লির ফাঁকামাঠে, বই প্রকাশ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে একটি প্রকাশনী সংস্থা। ঘড়িতে তখন বেলা ৩ টে। রতনকুঠিরে আনাগোনা বেড়েছে সিবিআই এর অফিসারদের। এমন পরিবেশে একদল বইপ্রেমী মানুষ ঘাসের মাঠে শতরঞ্চি পেতে বসেছেন। একে একে আসছেন অনেকেই। আর কিছুক্ষণের মধ্যেই উদ্বোধন হবে বইটি। মোটামুটি ভাবে মঞ্চ প্রস্তুত করে ফেলেছেন প্রকাশনা গোষ্ঠী। ঠিক তখনই ঢাক ঢোল বাজিয়ে বই প্রকাশ অনুষ্ঠানের মঞ্চে এলেন স্বয়ং কালী! চমকে উঠলেন সবাই! বাংলা প্রকাশনা জগতের এমন বই প্রকাশ অনুষ্ঠানকে ঘিরে সকলেই হতবাক। বিরল দৃশ্যের সাক্ষী থাকলো শান্তিনিকেতনের বইপ্রেমী মানুষজনরা। বৃহস্পতিবার এমন ভাবেই শান্তিনিকেতন রতনপল্লির মাঠে, লেখক রাধামাধব মণ্ডলের লেখা “বাংলার কালী ও কালীক্ষেত্র ” এবং দুটি উপন্যাস একত্রে “জল পাখির গান” বই দুটির উদ্বোধন হল।

আর এই উদ্বোধনী মঞ্চেই হঠাৎ উপস্থিত হলেন স্বয়ং কালী। বীরভূমের রাঙামাটি প্রকাশনীর এমন আয়োজনে অবাক উপস্থিত সকলে। পথচলতি বহু মানুষ ততক্ষণে ভিড় জমিয়েছেন এমন দৃশ্য দেখে। রাঢ়ের কালীক্ষেত্র ও কালীকথা খুবই গুরুত্ব পেয়েছে লেখক রাধামাধব মণ্ডলের বই এ। তিনিও রাঢ়বাংলার মানুষ। লেখক রাধামাধব মণ্ডলকে এবিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, “রাঢ়ের কালী আমার খুব প্রিয়। আমি আউশগ্রামের যে গ্রামে জন্মেছি, তা এক সময় ডাকাতদের অধীনে ছিল। আমার এলাকায় বহু কালী রয়েছে। এই আকর্ষণেই লেখা শুরু।” আর আজকের এই বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে হঠাৎ কালীর আগমন সম্পর্কে লেখক বলেন, “রাঢ়ের বিখ্যাত বহুরূপী শিল্পী নিতাই পাল লেখকের আত্মজন। তিনি বইটির কথা জেনে, নিজেই এমন আয়োজন করেছেন প্রকাশক সুব্রত দাসের সহযোগীতায়।বাংলা প্রকাশনা জগতের এমন বিরল বই প্রকাশ অনুষ্ঠান দেখে স্বভাবত খুশি বইপ্রেমীরা। সেইসঙ্গে বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে, শান্তিনিকেতন এই প্রথম ঢাক বাজলো।