Date : 2022-12-06

টেট নিয়ে ফের নয়া বিজ্ঞপ্তি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক:- চলতি বছর ১১ডিসেম্বর প্রাথমিকের টেট। পরীক্ষার আগে ফের একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। এই নিয়ে তৃতীয়বার টেট পরীক্ষার্থীদের যোগ্যতামানে পরিবর্তন করা হল। টেটে বসার যোগ্যতামানে ফের বদলের কারণেই এই বিজ্ঞপ্তি। ২০১০ সালের ২৩অগস্টের আগে যারা স্নাতক এবং বিএড পাশ করেছেন তাদের যোগ্যতামানে কিছু ছাড় দিল পর্ষদ। বিজ্ঞপ্তি জারি করে পর্ষদ জানিয়েছে ২০১০ সালের আগস্ট এর আগে যারা স্নাতক বা বিএড পাশ করেছে তাদের টেটে বসতে গেলে ৫০ শতাংশ নাম্বারের প্রয়োজন নেই। সেক্ষেত্রে জেনারেল ক্যাটাগরির প্রার্থীদের ৪৫ শতাংশ নাম্বার এবং সংরক্ষিত ক্যাটাগরির প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ৪০ শতাংশ নাম্বার থাকলেই তারা আবেদন জানাতে পারবে। তবে নাম্বার ছাড়া অন্যান্য যে সমস্ত যোগ্যতা পূরণের কথা বলা হয়েছে আবেদন পত্রে তা অবশ্যই মানতে হবে প্রার্থীদের।

চলতি বছরের ১১ ই ডিসেম্বর টেট অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যেই অনলাইনে কয়েক লক্ষ পরীক্ষার্থী টেটে বসার আবেদন জানিয়েছেন। ওইদিন বেলা 11 টা থেকে আড়াইটে পর্যন্ত পরীক্ষা চলবে মোট দেড়শ নাম্বারের মাল্টিপল চয়েস প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে পরীক্ষার্থীদের। টেট উত্তীর্ণ হওয়া মানেই শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ হয়ে যাওয়া নয়। তাই পরীক্ষার আগে সে বিষয়ে আরো একবার গাইডলাইনে সতর্ক করেছে পর্ষদ। পরীক্ষার্থীদের সুবিধার্থে এবার প্রথমবার ইনফরমেশন বুকলেট প্রকাশ করেছে পর্ষদ যেখানে কোন কোন বিষয়ের উপর পরীক্ষা নেওয়া হবে বা কেমন ধরনের প্রশ্ন হবে তার মডেল নমুনাও গাইডলাইনের মধ্যে উল্লেখ করে দিয়েছে পর্ষদ। ইতিমধ্যেই প্রাথমিকের টেটকে ঘিরে কড়া পদ্ধতি অবলম্বন করেছে পর্ষদ। পরীক্ষাকে ঘিরে ভবিষ্যতে যাতে কোনরকম অস্বচ্ছতার অভিযোগ না উঠে সেদিকে কড়া নজর রাখবে পর্ষদ। তাই নানাবিধ ব্যবস্থাপনা গ্রহন করা হয়েছে।স্বচ্ছতা বজায় রাখতে ভিডিও রেকর্ডিং যেমন করা হবে তেমনই পরীক্ষার্থীদের মেনে চলতে হবে কড়া নিয়ম। যে পরীক্ষার্থীর রোল নাম্বার হলের যে জায়গায় লেখা থাকবে সেই পরীক্ষার্থীকে সেই স্থানে বসতে হবে কড়া পর্ষদের।