Date : 2023-01-29

ঘরোয়া ও পকেট ফ্রেন্ডলি কম্বো খাবার মাত্র ৩০ টাকায়

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিকঃ মানুষকে ভালো খাওয়ানো তার স্বপ্ন, আর তার জন্যেই খাবার দোকান খোলা- এমনও মানুষ পৃথিবীতে আছে তা ভাবলেও আশ্চর্য লাগে। এমনই একজনকে পাওয়া গেল যার স্বপ্নই হল মানুষকে ভালো খাওয়াবো। নাম গুরু প্রসাদ মুখার্জী। ৩০ টাকায় কম্বো ফুড খাওয়াচ্ছেন তিনি। দোকানের নাম গুরুস কিচেন। ঝাঁ চকচকে দোকান নয়, পাতি ফুটপাতের উপর দোকান। যাদবপুরের সাউথ সিটি মলের দিকে যেতে গিয়েই বাঁদিকে পড়বে গুরুস কিচেন। এবার চোখ রাখা যাক খাবারের মেনুর উপর। ৩০ দিনে ৩০ রকমের মেনু হয়। বিভিন্ন ধরণের রাইস যেমন রয়েছে, তেমন রয়েছে পরোটা এবং থাকছে চার থেকে পাঁচটা চিকেন, মটনের পদ।

শুধু ননভেজ নয়, ভেজও পাওয়া যায়। গুরুস কিচেনে যে খাবারটা বেশি বিখ্যাত তা হল মটন কালাভুনা। চিকেনের মধ্যে রয়েছে- চিলি চিকেন, চিকেন চাপ, আলু দিয়ে মুরগির মাংসের ঝোল, কষা মুরগি, ফুলকলি চিকেন। মটনের মধ্যে মটন কালাভুনা, রেজালা, চাঁপ, আলু দিয়ে মটন সহ একাধিক পদ। এছাড়া রয়েছে চিলি সোয়াবিন, ওমলেট কারি, পনির কোফতা ইত্যাদি। রাইসের মধ্যে বিভিন্ন রাইস পাওয়া যাচ্ছে। জিরা রাইস, এগ রাইস, চিকেন রাইস, মিক্স রাইস, লেমন রাইস, খুসকা পোলাও, বেরেস্তা পোলাও, জাফরান পোলাও যেকোনও রাইস পাচ্ছেন ৩০ টাকায়।

এবার কম্বো কিভাবে পাচ্ছেন তাহলে- দু-পিস পরোটা তার সঙ্গে যেকোনো কারি যেমন পনির বা আলুরদম-৩০ টাকা কম্বো। যে কোনও রাইস সঙ্গে একপিস চিকেন বা মটন- ৬০ টাকা কম্বো। সাড়ে ৯ বছরের দোকান এই গুরুস কিচেন। প্রথম যখন ব্যবসা শুরু করেছিলেন গুরুপ্রসাদ বাবু তখন ২৫ টাকায় কম্বো ফুড দিতেন। কিন্তু লকডাউনের পর ব্যবসা শুরু করায় দাম ২৫ থেকে ৩০ টাকা করেছেন। দুপুরের দিকেই দোকান খোলেন তিনি। পকেট ফ্রেন্ডলি খাবার পেয়ে বেশ খুশি এখানে খেতে আসা মানুষজন। ঘরোয়া খাবারের পাশাপাশি গুরুবাবুর ব্যবহার খুব ভালো তাই বার বার আসা বললেন একানে আসা খাদ্যপ্রেমি মানুষজন। কলকাতায় ছোটখাটো দোকান অনেক বেড়েছে। আর চিপেস্ট খাবারের মধ্যে কলকাতা বেস্ট এমনটাও মন্তব্য শোনা গেল খাদ্যরসিক বাঙালির কাছ থেকে।