Date : 2023-01-28

ডিমের বর্তমান দাম ৭ টাকা। তাপমাত্রার পারদ পতন হলে ডিমের দাম আরও বাড়তে পারে। এমনটাই ইঙ্গিত দিল ক্যালকাটা এগ মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন।

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিক: ডিম মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত দের কাছে প্রিয় খাদ্য হিসেবে থাকে। আলু সিদ্ধ ভাত হলে পাতে যদি ডিম ভাজা বা ডিম সিদ্ধ হয়। তাহলে খাওয়া জমে যায়। কিন্তু সেই ডিমের দাম এখন ৭ টাকা। ডিমের মূল্যবৃদ্ধির কারণ কি?অন্যসময় ডিমের চাহিদা কম থাকলেও শীতকালে ডিমের চাহিদা বাড়ে। শুধু এরাজ্যে নয় গোটা ভারতবর্ষে ডিমের দাম ৭ টাকা। কিছুদিন আগেই ডিমের দাম প্রায় ৬ টাকা সাড়ে ৬ টাকার কাছাকাছি ছিল। সেটি নিমেষে বেড়ে গিয়ে ৭ টাকা।ক্যালকাটা এগ মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক কাজল দত্ত জানান চারটে রাজ্য যেমন কেরালা, অসম, ত্রিপুরা ও পশ্চিম বাংলায় সারাবছর ডিম চলে। কিন্তু অন্যান্য রাজ্য যেমন বিহার, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ এই সব রাজ্যে ডিম গরমের তুলনায় শীত কালে বেশি চলে।

পশ্চিমবঙ্গে প্রতিদিন ডিমের চাহিদা গড়ে প্রায় আড়ায় কোটি।এরাজ্যে ডিমের নিজস্ব উৎপাদন হয় এক কোটি। তাই বেশিরভাগ ডিম আমদানি হয় তেলেঙ্গানা, অন্ধ্রপ্রদেশ, পাঞ্জাব ও হরিয়ানা থেকে। ফার্মারের কাছে ডিমের উৎপাদন খরচ প্রায় সাড়ে চার টাকা। বর্তমানে খোলাবাজারে ডিমের দাম ১৩ টাকা জোড়া। ৭ টাকা পিস। পাইকারি পেটি হিসেবে নিতে হলে একটা ডিমের দাম পড়বে ৫ টাকা ৯০ পয়সা নিচে। দেশি মুরগি ডিমের দাম বাজারে চলছে ১০ টাকা থেকে ১১ টাকা। হাঁসের ডিমের দাম ১২ টাকা।মুরগি খাদ্য হিসেবে ভুট্টা সহ যেসব শস্য খায় তারও দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।
জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির জন্যে কেয়ারিং কোস্ট বা দাম বেড়েছে। জ্বালানির দাম বাড়ায় বাইরে থেকে ডিম এলে একটা ডিম এ ৬৫ পয়সা খরচ হতো। এখন হয় ৮৫ পয়সা। ডিসেম্বর মাসে কেকের বাজার তুঙ্গে। ফলে বাংলাতে ডিমের চাহিদা বেড়ে যায় জোগানের তুলনায়। শীত জাকিয়ে পড়লে, তাপমাত্রার পারদ পতন হলে ডিমের দাম এরাজ্যে ৮ টাকা ঘরেও ঠেকতে পারে বলে জানান ক্যালকাটা এগ মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক কাজল দত্ত।