Date : 2023-02-02

বয়কট ইস্যুতে কড়া অবস্থান হাইকোর্টের!নোটিশ ইস্যু কলকাতা পুলিশ কমিশনার লেক থানার অফিসার ইনচার্জ এবং হাইকোর্টের অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অফ পুলিশকে।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : বিচারপতি রাজা শেখর মান্থার এজলাস বয়কট ইস্যুতে হাইকোর্ট চত্তরে কোনো মিটিং মিছিল বিক্ষোভ কর্মসূচি করা যাবে না। আদালত অবমাননা সংক্রান্ত মামলায় নির্দেশ বৃহত্তর বেঞ্চের।

পাশাপাশি কারা ওই পোষ্টার প্রিন্ট করেছে। কোথা থেকে প্রিন্ট করা হয়েছে। করা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তা জানিয়ে রিপোর্ট দিতে হবে কলকাতার পুলিশ কমিশনারকে। আই টি অ্যাক্ট ও এভিডেন্স অ্যাক্ট অনুযায়ী হাই কোর্টে জমা পড়া সিসিটিভি ফুটেজ এবং স্টিল ফটো সরকারের দ্বারা প্রত্যয়িত সার্টিফিকেট জমা দেবেন অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অফ পুলিশ হাই কোর্ট । আই টি অ্যাক্ট ও এভিডেন্স অ্যাক্ট অনুযায়ী হাই কোর্টে জমা পড়া সিসিটিভি ফুটেজ এবং স্টিল ফটো সরকারের দ্বারা প্রত্যয়িত হওয়া জরুরি।

লেক থানাকে ঘটনার সমস্ত তথ্য জমা দিতে হবে। এদিন শুনানিতে বৃহত্তর বেঞ্চ এ জমা পরে বিক্ষোভের দিনের সিসিটিভি ফুটেজ। রেজিস্ট্রার জেনারেল মুখবন্ধ খামে সিসিটিভি ফুটেজ জমা দিলেন। অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অফ পুলিশ হাই কোর্ট এর তরফে সেই সিসিটিভি ফুটেজ জমা পড়লেও তাতে সরকার পক্ষে কোনো সার্টিফিকেট না থাকায় তা খুলতে রাজি নয় বৃহত্তর বেঞ্চ।

তাপস মাইতির চিঠিতে কুণাল ঘোষ সহ ১২ জন আইনজীবীর নাম।

বৃহত্তর বেঞ্চের বিচারপতি আই পি মুখার্জি বলেনএটা খুব গুরুত্বপূর্ণ অভিযোগ। তাই আদালত অবমাননা কারি দের সঠিক ভাবে চিহ্নিত করা খুব জরুরী।

নির্দেশ বৃহত্তর বেঞ্চের*

১-আই টি অ্যাক্ট ও এভিডেন্স অ্যাক্ট অনুযায়ী হাই কোর্টে জমা পড়া সিসিটিভি ফুটেজ এবং স্টিল ফটো সরকারের দ্বারা প্রত্যয়িত হওয়া জরুরি।

২-কারা ওই পোষ্টার প্রিন্ট করেছে। কোথা থেকে প্রিন্ট করা হয়েছে। করা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তা জানিয়ে রিপোর্ট দিতে হবে কলকাতার পুলিশ কমিশনারকে।
আই টি অ্যাক্ট ও এভিডেন্স অ্যাক্ট অনুযায়ী হাই কোর্টে জমা পড়া সিসিটিভি ফুটেজ এবং স্টিল ফটো সরকারের দ্বারা প্রত্যয়িত সার্টিফিকেট জমা দেবেন অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অফ পুলিশ হাই কোর্ট ।

৩-লেক থানাকে ঘটনার সমস্ত তথ্য জমা দিতে হবে।
আগামী ২রা ফেব্রুয়ারিতে মামলার পরবর্তী শুনানি।
মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে করা জনস্বার্থ মামলা পরিপ্রেক্ষিতেবিচারপতি রাজাশেখর মান্থার বিরুদ্ধে পোস্টার লাগানোর ঘটনায় রাজ্যের কাছে রিপোর্ট চাইল কলকাতা হাই কোর্ট। মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশ, ৭ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে রিপোর্ট দিতে হবে রাজ্যকে। তার পাল্টা হলফনামা দেবেন মামলকারীও।

আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য জনস্বার্থ মামলায় পুলিশের তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। বিকাশরঞ্জনের সওয়াল, ৪-৫ দিন হয়ে গিয়েছে পুলিশ কী পদক্ষেপ করেছে জানা যায়নি। যাঁরা পোস্টার লাগিয়েছে তাঁদের খোঁজার কাজ পুলিশ শুরু করেছে কি না, তা-ও অজানা। এরপরই তদন্তের স্ট্যাটাস রিপোর্ট জানতে চায় হাই কোর্ট। আগামী ৩০ জানুয়ারি এই মামলার পরবর্তী শুনানি।