Date : 2023-02-02

পার্কিং এর চিন্তা থেকে মুক্তি। নির্দ্বিধায় ঘুরুন চিড়িয়াখানা, আলিপুর মিউজিয়াম‌।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : এই শীতে ছুটির দিনটা পরিবার নিয়ে একটু চিড়িয়াখানা যাবেন, কি নতুন তৈরি হ‌ওয়া আলিপুর মিউজিয়াম দেখতে যাবেন, কিন্তু গাড়ি কোথায় রাখবেন সেই চিন্তা করে প্ল্যান ক্যানসেল করতে হলো। বাড়িতে গিন্নি রেগে গ’ আর ছেলেপুলে তো অভিমানে খাওয়া দাওয়া ছেড়ে কথা বলাই বন্ধ করে দিয়েছে। এবার সেই চিন্তা থেকে মুক্তি। সোমবার আলিপুরে উদ্বোধন হয়ে গেল মাল্টি লেভেল কার পার্কিং এর।

একদিকে “চিড়িয়াখানা”, তার পাশে রয়েছে “ন্যাশনাল লাইব্রেরী”। ওদিকে “উত্তীর্ণ”, ঠিক উল্টোদিকে উদ্বোধনের অপেক্ষায় “ধনধান্যে অডিটোরিয়াম।” আরেক দিকে রয়েছে “আলিপুর মিউজিয়াম‌।” সারা বছর‌ই এই জায়গাগুলোতে ভিড় লেগে থাকে। বিশেষ করে শীতের সময়। কিন্তু অনেকেই নিজস্ব গাড়ি নিয়ে এসে ঝামেলায় পড়েন। একে তো পার্কিং এর সমস্যা, তার উপর ট্রাফিকের ভীষণ চাপ। চাপে পড়েন ট্রাফিক পুলিশের কর্মিরাও। গাড়ির গতি হয়ে যায় অত্যন্ত ধীর। এই সমস্যা এবার আর থাকছে না।

সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তীর্ণের ঠিক উল্টোদিকে ছয় তলার একটি পার্কিং লটের উদ্বোধন করলেন। উদ্বোধনের পর মুখ্যমন্ত্রী জানান,”এখন এটা ছয় তলার হয়েছে। পরে আরও চারটে তলা বাড়ানো হবে। এখানে একসঙ্গে চারশোটা গাড়ি রাখা যাবে।” পূর্ত দফতর সূত্রে খবর এখানে মোট কুড়িটি বাস, পঞ্চাশ থেকে পঞ্চান্নটি বাইক ও প্রায় সাড়ে তিনশোটি চার চাকার গাড়ি পার্ক করা যাবে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন,”এখানে ফুড কোর্ট থাকছে যাতে ড্রাইভারদের খেতে কোনো সমস্যা না হয়।” মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ” এটা সরকারি জায়গা। জায়গাটা কেউ না কেউ নিয়ে রেখেছিলো। সেটা উদ্ধার করা হয়েছে।” এই কার পার্কিং এর নামকরণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই। তিনি বলেন, “এটার নাম দিয়েছি সম্পন্ন।” ‘নবান্ন’, ‘শুভান্ন’, ‘উপান্ন’ এগুলোর‌ও নামকরণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।