Date : 2023-01-28

কেমন আছেন রাণাঘাটের রানু মণ্ডল?

রাকেশ নস্কর, সাংবাদিক : রানাঘাট স্টেশন থেকে রানুর পরিচিতির গল্পের শুরু। পেটের দায়ে খোলা গলায় গান গেয়ে ভিক্ষাবৃত্তি করে দু বেলা কোনওরকমে চলে যেত । হঠাত্ করেই তাঁর খোলা গলায় গান ভাইরাল হয়ে ওঠে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখান থেকে প্রশংসার ঝড় ওঠে সোশ্যাল দুনিয়ায়। সঙ্গীত জগতের কিম্বদন্তি শিল্পী লতা মঙ্গেশকারের সঙ্গে তাঁর গানের তুলনা শুরু হয়।

এতটাই ভাইরাল হলেন রানু মণ্ডল যে ২০১৯ সালে মুম্বইয়ে ডাক পেলেন গান করার জন্য। একটি রিয়্যালিটি শো-য়ে। সেখানে হিমেশ রেশামিয়া বিচারকের আসনে বসে ছিলেন। রানুর গান শুনে প্লেব্যাক করার সুযোগ করে দেন হিমেশ রেশামিয়া। ২০২০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত হ্যাপি হার্ডি হির ছবিতে হিমেশের সঙ্গে ডুয়েট গানে কণ্ঠ দেওয়ার পর রানু রাতারাতি সেলিব্রিটি হয়ে ওঠেন। তারপর ২০২১ বেশ ভালোই শো বা অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ পেতেন রানু। গানও গাইতেন অনুষ্ঠানে। এখন সেই রানুর আমন্ত্রণ বা অনুষ্ঠান নেই। নেই কোনও কাজ। না কোনও গান গাইবার ডাক।

২০২২ সাল থেকেই ধীরে ধীরে ফিকে পরে গিয়েছে তাঁর পরিচিতি। রানাঘাটের রানু বগোপাড়ার বাড়িতে আগের মতই একা দিনযাপন করছেন। আস্তাকুঁড়ের রানু পরিচিতির আলোয় এলেও। ফের আস্তাকুঁড়েই ফিরে গিয়েছেন। ইউটিউবারদের ব্যবসার খোরাক হয়ে উঠেছে তিনি।

প্রচারের সার্চলাইট থেকে অনেক দুরে রানুর কি এটাই প্রাপ্য ছিল। কেমন আছেন তিনি। রানুর খবর নিতে রানাঘাটে পৌছে গিয়েছিল আর প্লাস নিউজ। বলিউডে গান গাইলেও আপাতত সঙ্গীত জগতে আর কোনও কাজ নেই রানু দেবীর। কিছুটা রানু মণ্ডল নিজেও দায়ী তাঁর কিছু অবান্তর বক্তব্যের কারণে। রানাঘাটের বাড়িতে রানু মণ্ডল একাই দিন যাপন করছেন। যারা তাঁর বাড়িতে অনুরাগী হিসেবে যান। তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ খাবার দিয়ে যান রানুর জন্য।

কেউ রানু মণ্ডলকে সেলিব্রিটি হিসেবে দেখেন। আবার কেউ হাসি মজার খোরাক ভাবেন। অন্যদিকে ইউটিউবারদের উপদ্রপ দিনভর। সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইক ভিউয়ার্সের খোরাক হিসেবে রানু মণ্ডলের বাড়িতে হানা দেয় সব ইউটিউবাররা। সেখানে কেউ রানুকে নিয়ে হাসি মজার ভিডিও বানায়, আবার কেউ কেউ অশ্লীল আচরণ করেন। শিল্পী রানু না হলেও, মানুষ হিসেবে রানুর কি এই দুর্ব্যবহার প্রাপ্য ? কে পাশে দাড়াবে রানুর? কেউ কি এগিয়ে আসবে রানুর পরিস্থিতিতে। সভ্য সমাজে আরও ভালো পরিবেশ কি তিনি পেতে পারেন না তিনি ?