Date : 2023-02-02

২০১৪ সালের টেট প্রশ্নে ভুল ছিল। আদালতে স্বীকারোক্তি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : সোমবার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে রিপোর্ট জমা দিয়ে তারা জানিয়েছে তাঁদের প্রশ্নে ভুল ছিল।

২০১৪সালের প্রাথমিক টেট পরীক্ষায় উর্দু বিষয়ে মোট ৫টি প্রশ্ন ভুল ছিল। যার জেরে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশ, যেহেতু পর্ষদ প্রশ্ন ভুলের কথা স্বীকার করে নিয়েছে তাই মামলাকারীরা যদি ওই ৫ টি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন তাহলে তাদের ওই প্রশ্ন গুলি লেখার চেষ্টা করার জন্য অতিরিক্ত ৫ নম্বর দিতে হবে। এবং দেখতে হবে ওই ৫ নম্বর পাওয়ার পর তারা টেট উত্তীর্ণ হচ্ছেন কি না। যদি তারা টেট উত্তীর্ণ বলে বিবেচিত হন তাহলে ৪ সপ্তাহের মধ্যে তাদের চাকরির ব্যাবস্থা করতে হবে।
সোমবার ১০ জন মামলা কারির দাবি ছিল ওই বছর ৬টি প্রশ্ন ভুল ছিল। যা নিয়ে পর্ষদের কাছে রিপোর্ট তলব করেছিল আদালত। সেই রিপোর্ট জমা পড়ে। সেখানে পর্ষদ স্বীকার করে নিয়েছে ৫ টি প্রশ্নের উত্তর ভুল ছিল।
আদালতের আরো নির্দেশ, প্রশ্ন ভুলের জন্য করা কত নম্বর পেলেন তা নিয়ে চার সপ্তাহের মধ্যে পর্ষদকে রিপোর্ট পেশ করতে হবে। 14 ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানি।
এছাড়াও এই মামলার এদিন বিচারপতির মন্তব্য,
‘পর্ষদের ভুলের জন্য নির্দোষ প্রার্থীরা ভুক্তভোগী হতে পারে না। চার বছর ধরে তারা ভুক্তভোগী হচ্ছেন। এর জন্য তৎকালীন পর্ষদ সভাপতি(মানিক ভট্টাচার্য) সহ বোর্ডের সমস্ত সদস্যকে এর জন্য ভুগতে হবে। আগামী শুনানির দিন এ নিয়ে আমি নির্দেশ দেবো।’