Date : 2023-02-02

জনতার দুয়ারে তৃণমূল কংগ্রেস। নতুন কর্মসূচি ঘোষণা অভিষেক-মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক ঃ বছরের শুরুতেই নতুন রাজনৈতিক কর্মসূচি ঘোষণা করলো তৃণমূল কংগ্রেস। “দিদির সুরক্ষা কবচ” নামের এই কর্মসূচি আসলে রাজ্যের প্রতিটা বাড়িতে তৃণমূল কংগ্রেসকে পৌঁছে দেওয়ার কর্মসূচি। নজরুল মঞ্চে তেমনটাই জানালেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের ঠিক আগে “দিদিকে বলো” নামে একটা কর্মসূচি নিয়েছিলো তৃণমূল। আবার ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের আগেও “বাংলার গর্ব মমতা” নামে আরও একটি কর্মসূচি নিতে দেখা যায় তৃণমূল কংগ্রেসকে। দুটো কর্মসূচি‌ই নির্বাচনে দলকে ডিভিডেন্ট দিয়েছিলো, এমনটাই মত দলের শীর্ষ নেতাদের অনেকের। বছর শুরুর দ্বিতীয় দিনে শুরু করা নতুন এই কর্মসূচি যে আখেরে পঞ্চায়েত ভোটকে সামনে রেখেই তা এক কথায় বলা যায়। যদিও তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক প্রশ্নের উত্তরে এদিন জানান, “তাঁরা ভোটের দিকে তাকিয়ে কোনো কর্মসূচি নেন না। এটা একটা নিরন্তর প্রয়াস। তাঁরা সারা বছর মানুষের সঙ্গে থাকেন, মানুষের কাজ করেন, মানুষের কথা ভাবেন, তাই তাদের জন্য‌ এই কর্মসূচি।”

এদিন বিজেপির নাম না নিয়ে কিছুটা কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “কেউ কেউ নির্বাচনের আগে ফ্রি রেশন দেওয়ার কথা বলে, তেলের দাম দশ টাকা কমিয়ে দেয়। আর ভোট মিটে গেলেই ফ্রি রেশন তুলে দেয়, তেলের দাম তিরিশ টাকা বাড়িয়ে দেয়।”

নতুন এই কর্মসূচি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “আমাদের সরকার যেমন ‘দুয়ারে সরকার’ ক্যাম্প করে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁচাচ্ছে ঠিক তেমনি শাসক দলেরও কিছু দায়বদ্ধতা থাকে। তৃণমূল কংগ্রেস এই কর্মসূচির মাধ্যমে সাধারণ মানুষের দুয়ারে পৌঁছাবে। তাদের অভাব অভিযোগের কথা শুনবে।” তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্য সরকার প্রচুর উন্নয়নমূলক প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এইসব প্রকল্প রাজ্যের সাধারণ মানুষের সুরক্ষা কবচ। সরকারের পনেরোটা ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প সম্মন্ধে রাজ্যের মানুষকে আরো বেশি অবহিত করার জন্য‌ই তৃণমূল কংগ্রেস এই কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।” এই কর্মসূচি কিভাবে পালন করা হবে, নজরুল মঞ্চের বৈঠকে সেই বিষয়টিও বিস্তারিতভাবে জানান অভিষেক।

কেন্দ্রীয়ভাবে ৩২০ জনের বেশি একটি টিম তৈরি করা হয়েছে যে টিমের সদস্যরা ১১ জানুয়ারি থেকে শুরু করে আগামি ৬০ দিন রাজ্যের প্রায় দুই কোটি পরিবারের দশ কোটি মানুষের সঙ্গে দেখা করবেন, তাদের সঙ্গে কথা বলবেন, তাদের বাড়িতে রাত কাটাবেন। অভিষেকের কথা অনুযায়ী এর পরেই “দিদির সুরক্ষা কবচ” কর্মসূচির অঙ্গ হিসাবে “দিদির দূত” অ্যাপ নিয়ে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ স্বেচ্ছাসেবক ওই বাড়িগুলোতে যাবেন। সেখানে তাদের সব অভাব অভিযোগ দিদির দূত অ্যাপে লিপিবদ্ধ করবেন। অভিষেকের মতে রাজ্যের ৩৩৪৩ টা অঞ্চলেই এই কর্মসূচি পালন করা হবে। শুধুমাত্র যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে গ্রামাঞ্চলেই যাওয়া হবে তা নয়, মিউনিসিপ্যাল এলাকাতেও এই কর্মসূচি পালন করা হবে।