Date : 2023-02-02

যাত্রী সুরক্ষায় বড়সড় পদক্ষেপ রাজ্যের। অ্যাপ আনলো পরিবহন দফতর।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : স্কুল ছুটি হয়ে গেছে অনেকক্ষণ আগে। এখনো বাড়ি ফিরলো না সন্তান। বাড়িতে উদ্বিগ্ন অভিভাবক। শেষ বাসে অফিস থেকে বাড়ি ফিরছে মেয়ে। কিন্তু ফোন ধরছে না কেন ? খারাপ চিন্তায় মা অস্থির। এবার এই ধরনের অবস্থা থেকে অনেকটাই মুক্তি মিলবে। যাত্রী সুরক্ষায় পুলিশের সঙ্গে যৌথভাবে অ্যাপ নির্ভর পরিষেবা আনল পরিবহন দফতর। সোমবার যার উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বানিজ্যিক ভিত্তিতে যাত্রী পরিবহনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে, এমন সব গাড়িকেই ভেহিক্যালস লোকেশন ট্র্যাকিং ডিভাইসের (Vehicle Location Tracking App) সঙ্গে যুক্ত করা হবে। এরমধ্যে সরকারি বাস যেমন রয়েছে, তেমনি বেসরকারি বাস, স্কুল বাস, সাড়ে তিন টনের বেশি পন্য পরিবহনে ব্যবহৃত গাড়ি, সমস্ত অ্যাপ নির্ভর চার চাকার গাড়ি‌। এদিন এই পরিষেবার সূচনা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “মা-বোনেদের নিরাপদ রাখার জন্য পরিবহন ও পুলিশ যৌথভাবে এই অ্যাপ এনেছে। কিছু দুষ্টু লোক তো সব জায়গায় থাকে। এই অ্যাপের মধ্য দিয়ে সব গাড়িকেই পুলিশ ও পরিবহন দফতর লক্ষ্য রাখবে কোথাও মেয়েদের উপর বা শিশুদের উপর কোনো অত্যাচার হচ্ছে কি না। কোনো কিছু গড়বড় হলেই প্যানিক বাটন টা প্রেস করে দেবেন। সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসনের কাছে খবর ও গাড়ির লোকেশন পৌঁছে যাবে।

পরিবহন দফতর ও পুলিশের কন্ট্রোল রুমের সঙ্গে কানেক্টেড থাকবে এটা।” এদিকে পরিবহন মন্ত্রী স্নেহাশীষ চক্রবর্তী বলেন, “এই ট্র্যাকিং সিস্টেমের জন্য ইতিমধ্যেই পোদ্দার কোর্টে পরিবহন দফতরের অফিসে কন্ট্রোল রুম তৈরি হয়ে গিয়েছে। এই অ্যাপ বাড়ির লোকেরাও নিজেদের অ্যাপ নির্ভর ফোনে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।” পরিবহন মন্ত্রী আরও জানান, “কেউ প্যানিক বাটন এ প্রেস করলে সঙ্গে সঙ্গে কন্ট্রোল রুমে সেটা দেখা যাবে। তৎক্ষণাৎ ওই গাড়ির সবচেয়ে কাছে থাকা পুলিশ স্টেশনে খবর চলে যাবে। দেড় মিনিটের মধ্যে পুলিশ পুরো বিষয়টি জেনে ব্যবস্থা নেওয়ার পথে চলে যেতে পারবে।” পরিবহন দফতর সূত্রে খবর, বাসের ক্ষেত্রে এই ডিভাইস (Vehicle Location Tracking App) থাকবে ড্রাইভারের কেবিনে। বাসের দৈর্ঘ্য অনুযায়ী প্রতি দুই মিটার অন্তর প্যানিক বাটন থাকবে। বাসের গায় প্যানিক বাটনের লোকেশন চিহ্নিত করে দেওয়া থাকবে। ট্যাক্সি ও অ্যাপ নির্ভর ক্যাবের ক্ষেত্রেও এই ডিভাইস বসানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ৩১ মার্চের মধ্যে সব গাড়িতেই ডিভাইস বসানো বাধ্যতামূলক বলে জানানো হয়েছে পরিবহন দফতর থেকে। পরিবহন মন্ত্রী জানান, ” আপাতত মোট ১২ টি সংস্থা এই অ্যাপ পরিষেবা দেবে। তবে ভবিষ্যতে এই সংখ্যা বাড়তে পারে। সাধারণ মানুষ তার নিজের সুবিধা অনুযায়ী অ্যাপ ডাউনলোড করে নিতে পারবে।” তিনি আরোও বলেন, “শুধু শহর কলকাতা নয়, এই পরিষেবা সারা রাজ্যের জন্য‌ই চালু করা হচ্ছে।” এদিকে বেসরকারি বাস পরিবহন সংগঠন সূত্রে বলা হচ্ছে, এই যন্ত্র বসানোর খরচ প্রায় আট থেকে দশ হাজার টাকা। সরকার সাবসিডি না দিলে এটা বসানোর সমস্যা রয়েছে। তবে যাত্রী সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে সরকার এই অ্যাপ পরিষেবা চালু করার বিষয়ে বদ্ধপরিকর বলেই জানা যাচ্ছে।