Date : 2024-06-13

দেউচা পাঁচামিতে আধিগৃহি ত জমির জন্য যদি পরিবারকে চাকরি দেওয়া হয়, তবে রাজ্যের অন্যত্র নয় কেন? প্রশ্ন বিচারপতি শুভ্রা ঘোষের।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : এমন কি ক্ষতি পূরণের অঙ্কের ক্ষেত্রেও কি করে দেউচার ক্ষেত্রে আলাদা হিসেবে ক্ষতি পূরণ, তাই নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে আদালত।

নদীয়ার কৃষাণগঞ্জ থানা এলাকায় সীমান্ত পথ ও রাস্তা তৈরির জন্য অধিগৃহিত জমির জন্য কেন্দ্রীয় আইন না মেনে ক্ষতিপূরণের মামলায় এই প্রশ্ন তুললো হাইকোর্ট। রাজ্য সরকারকে এই ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিতে হবে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে। একইসঙ্গে নদীয়ার জেলা শাসককে হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে কোন আইনে ক্ষতি পূরণের কথা বলে অধি গ্রহণের নোটিস দেওয়া হয়েছে। ১৩ জুন দুপক্ষকে এই হলফনামা দিতে হবে আদালতে।নদীয়ার জমি দাতারা কেন্দ্রীয় সরকারের ২০১৩ সালের নতুন আইনে ক্ষতি পূরন চান। তাদের আইনজীবী অরিন্দম দাস

বৃহস্পতিবার দেউচার ক্ষতি পূরণ ও চাকরির প্যাকেজ সংক্রান্ত রাজ্যের নথি আদালতে জমা দেন। একইসঙ্গে নদীয়ার অধি গ্রহণের প্যাকেজ জমা দেন। তার অভিযোগ, সরকারি কাজে অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে রাজ্যের নীতি দু রকম। দেউচায় যদি জমি দিলে এত রকম সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায়, অন্য ক্ষেত্রে তাহলে কেনো এই বঞ্চনা? রাজ্যের আইনজীবী নদীয়ার জমি দাতাদের জেলা শাসকের কাছে আবেদন জানানোর কথা বলেন। কিন্তু আদালত তা খারিজ করে দিয়ে রাজ্যের কাছে হলফনামা তলব করে।