Date : 2024-04-20

এগিয়ে এল গরমের ছুটি। নির্দেশিকা জারি শিক্ষা দফতরের।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : ২মে থেকে পড়ছে স্কুলে গরমের ছুটি। রাজ্যজুড়ে চলা তীব্র দাবদাহের হাত থেকে পড়ুয়াদের রেহায় দিতে ছুটি এগিয়ে আনা হল। বৃহস্পতিবার ছুটি এগিয়ে আনার বিজ্ঞপ্তি জারি করল শিক্ষা দপ্তর।
এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকেই ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী তাপমাত্রার পারদ। তীব্র দাবদাহে জ্বলছে কলকাতা সহ গোটা বাংলা। সকাল হতে না হতেই শুরু হচ্ছে তাপমাত্রার পারদ চড়া। যার ফলে ব্যাপক ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে পড়ুয়াদের। পড়ুয়াদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতবারের মতো এবারও ছুটি এগিয়ে আনার নির্দেশ দেন। শিক্ষাদফতর সূত্রের খবর মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশের পরেই তিন সপ্তাহ গ্রীষ্মের ছুটি এগিয়ে আনার তোড়জোড় শুরু করে শিক্ষা দফতর। এরপর সমস্ত সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলে ছুটি এগিয়ে আনার নির্দেশিকা পাঠিয়ে দেওয়া হয় ২৪ শে মে এর পরিবর্তে ২ মে থেকে শুরু হবে গ্রীষ্মের ছুটি। বেসরকারি স্কুলগুলি কেউ ছুটি এগিয়ে আনার অনুরোধ জানানো হবে বলে শিক্ষা দপ্তর সূত্রের খবর ।

শিক্ষা দপ্তরের নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছে, দার্জিলিং কালিঙপং-এর মত পাহাড়ি এলাকার স্কুল ব্যতীত রাজ্যের অন্যান্য জেলার সমস্ত সরকারি স্কুল ২ মে থেকে গ্রীষ্মকালীন ছুটির নির্দেশিকা মেনে ছুটি দেবে। পরবর্তী নির্দেশিকা না দেওয়া পর্যন্ত স্কুল ছুটি থাকবে। স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মীরাও জরুরি বা বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ছুটিতে থাকবেন। স্কুল যখন ফের চালু হবে তখন অতিরিক্ত ক্লাস নিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের সিলেবাস সম্পন্ন করবেন। অতিরিক্ত ক্লাসের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে স্কুলগুলি।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, বর্তমানে রাজ্যে চলছে তাপপ্রবাহ, আগামী কয়েক দিন তা বজায় থাকবে। চৈত্র সংক্রান্তি এবং বর্ষবরণে তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি থাকবে বাংলায়। শনিবার পর্যন্ত বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই,বলেই মত আবহাওয়াবিদদের।পাশাপাশি সপ্তাহান্তে পশ্চিমের জেলা-সহ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের ছয়-সাত জেলাতে তাপপ্রবাহের মতো পরিস্থিতি তৈরি হবে বলেই জানাচ্ছে হাওয়া অফিস । পশ্চিমের রাজ্যগুলির মতো বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূমে শুকনো গরম হাওয়া বইবে। ইতিমধ্যেই তাপমাত্রা ৪০ডিগ্রি পার করেছে। তাপমাত্রা আরও ২ থেকে ৪ ডিগ্রি বাড়তে পারে। আশঙ্কা আবহাওয়াবিদদের। আর এই গরমে পড়ুয়াদের স্বস্তি দিতেই এগিয়ে আনা হল স্কুলে গ্রীষ্মকালীন ছুটি।