Date : 2024-04-13

স্নাতকে ভর্তির অভিন্ন পোটার্লের গেজেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল উচ্চশিক্ষা দফতর।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : স্নাতকে ভর্তির অভিন্ন পোটার্লের গেজেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল উচ্চশিক্ষা দফতর। মন্ত্রীসভার সবুজ সংকেত পাওয়ার কয়েকদিনের মধ্যেই প্রকাশিত হল বিজ্ঞপ্তি। কলেজে ভর্তির প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা আনতে এই উদ্যোগ বলে মত শিক্ষকমহলের।

এবার একটি পোর্টালের মাধ্যমেই রাজ্যের সব সরকারি ও সরকার অনুমোদিত কলেজে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু হতে চলেছে। নতুন শিক্ষাবর্ষ থেকেই তা কার্যকর হতে চলেছে। এই নিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল উচ্চশিক্ষা দফতর। আর উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণদের স্নাতক স্তরে ভর্তি হতে গেলে বিভিন্ন কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের পোর্টালে আলাদা ভাবে আবেদন করতে হবে না। আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই উচ্চশিক্ষা দফতরের তৈরি কেন্দ্রীয় পোর্টালের মাধ্যমেই স্নাতকে ভর্তি হওয়ার আবেদন করতে পারবেন তারা।মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন রাজ্য মন্ত্রিসভা এ বিষয়ে অনুমোদন দেওয়া কয়েকদিনের মাথায় কেন্দ্রীয় পোর্টালের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল শিক্ষা দফতর। এতদিন যে ভাবে ভর্তি স্নাতকে ভর্তি হওয়া যেত।স্নাতকে ভর্তির আগের নিয়ম, রাজ্যের কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির নিজেস্ব পোর্টাল ছিল। সেই পোর্টালের মাধ্যমে পৃথক ভাবে স্নাতকে অনলাইনে ভর্তির ব্যবস্থা ছিল।প্রতিটি কলেজের নিজস্ব ওয়েবসাইটে গিয়ে উচ্চমাধ্যমিক উত্তীর্ণদের ভর্তির আবেদন করতে হত এবং ফি দিতে হত।প্রতিটি কলেজ- বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদনের সময়সীম আলাদা হত।তাতে বহু কলেজে আসন খালিও থেকে যেত।

বিভিন্ন কলেজে ভর্তির সময়সীমা পৃথক হওয়ায় পড়ুয়াদের সমস্যায় পড়তে হত। ভর্তিকে ঘিরে নানা অস্বচ্ছতার অভিযোগও উঠত। তাই সব দিক বিচার বিবেচনা করেই এই কেন্দ্রীয় পোর্টাল চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, পোর্টালটি রক্ষণাবেক্ষণ করবে উচ্চ শিক্ষা দফতর। ভর্তির সময় পড়ুয়াদের একটি নির্দিষ্ট ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ফি জমা দিতে হবে। ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্নের এক মাসের মধ্যে
সংশ্লিষ্ট কলেজে ভর্তির টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হবে।
এই পোর্টালের জেরে ভর্তি প্রক্রিয়ায় যেমন অনেকটাই স্বচ্ছতা আনা তেমনই খালি আসন অনেকটাই পূর্ণ হবে বলে মত শিক্ষকমহলের একাংশের।