Date : 2024-06-12

চিনা ভাষায় রবীন্দ্র সঙ্গীত এবং চিনা ভাষা শিক্ষণ বিভাগের শুভ উদ্বোধন হল একটি বেসরকারি স্কুলে।

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিক:- ইতিহাস বলছে কবি গুরু রবি ঠাকুর ১৯২৪ সালে চিন সফরে যান। সীমান্তে যাই চলুক। বাংলার সঙ্গে চিনের একটা আলাদা সম্পর্ক আছে। তাই বিশ্বভারতীতেও চিনা ভাষা পড়ানো হয়।

এবার স্কুলেও চিনা ভাষা পড়ানো হবে। থার্ড ল্যাঙ্গয়েজ হিসেবে।কলকাতার সল্টলেকে একটি বেসরকারি স্কুল সেন্ট জোয়ানস এ পড়ানো হবে চাইনিজ ভাষা। এই অভিনব কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন চিনের দূতাবাসের প্রধান, বিধাননগর মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের মেয়র মাননীয় শ্রীমতি কৃষ্ণ চক্রবর্তী সহ বিশিষ্টজনেরা।

চিনা ভাষা শিক্ষণ বিভাগের শুভ উদ্বোধন করেন চীনের কনসাল জেনারেল ঝা লিউ। পঁচিশে বৈশাখ উপলক্ষে চিনা ভাষায় রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশন করেন স্কুলের ছাত্র ছাত্রীরা। চীন ভারত সীমান্তে যতোই উত্তেজনা হোক, কিন্তু বাংলার রবি ঠাকুরের সঙ্গে সম্পর্ক মন্দ না। চীনের কনসাল জেনারেল ঝা লিওন খুশি।

দু’দেশের সাংস্কৃতিক মিলের কথা তুলে ধরলেন তিনি। ঝা লিউ বলেন, ভারতীয় শিক্ষার্থীদের কাছে চীনা ভাষা ও সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য সেন্ট জোয়ান্স স্কুলের উদ্যোগের প্রতি তার কৃতজ্ঞতা রয়েছে।তিনি আন্তঃসাংস্কৃতিক বোঝাপড়ার প্রচার এবং দৃঢ় সম্পর্ক গড়ে তোলার ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বের ওপর জোর দেন। স্কুলের প্রিন্সিপাল জানালেন, ” চাইনিজ ভাষায় রবীন্দ্রসঙ্গীত সহজ বিষয় নয়। কিন্তু আমাদের ছেলে মেয়েরা ভাল করেছে।তিনি আরও জানান , এই প্রোগ্রামটি তাদের মস্তিষ্কের শক্তি বাড়াতে, স্মৃতিশক্তি উন্নত করতে এবং মাল্টি-টাস্কিং দক্ষতা তৈরি করতে সাহায্য করবে।