Date : 2024-05-27

DA দাবিতে নবান্ন অভিযানের অনুমতি দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক ঃ ডি এ র দাবিতে মিছিল নিয়ে বিকল্প জায়গার প্রস্তাব রাজ্যের। প্রস্তাবে সাড়া আন্দোলনকারীদের। ৪ মে দুপুর আড়াইটা থেকে সড়ে চারটে পর্যন্ত ফেরিঘাট, বঙ্কিম সেতু, ডি এম স্লোপ, এম জি রোড হয়ে হাওড়া ময়দান পর্যন্ত মিছিল যাবে।

আদালত রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেলকে অনুরোধ, সব সিপি, এসপি দের আদালতের আগের নির্দেশ মতো, অনলাইনে অনুমতির আবেদন নেওয়ার ব্যাবস্থা করা হোক। এই ইস্যুতে কোর্ট স্বচ্ছতা আনার জন্য এই বিষয়টা কার্যকর করার কথা বারবার বলছে।

রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল সৌমেন নাথ মুখোাধ্যায় জানান প্রায় ৬ কিলোমিটার রাস্তা মিছিল। সেখানে স্কুল, কোর্ট, বাজার, প্রশাসনিক ভবন সব আছে। চারটে আপত্তি আছে। ঘনো বসতি একাকা। স্কুলের বাচ্চাদের ছুটির সময় বেলা আড়াই টায় মিছিল। ট্র্যাফিক সমস্যা শুধু নয়, অফিস ও স্কুল পড়ুয়াদের সমস্যা। বঙ্কিম সেতুর পাশে বিকল্প জায়গা দেওয়া হয়েছে।

অ্যাডভোকেট জেনারেল আরও বলেন দিল্লির যন্তরমন্তর ও শাহীন বাগের আন্দোলন স্থল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ তুলে ধরেন।
জজ: সবার ক্ষেত্রে একই নিয়ম চালু করুন। আপনারা যে আপত্তি করছেন, সেটা আগামীতে শাসক দলের ক্ষেত্রেও করবেন তো? কারণ এর মধ্যে একইরকম ভাবে দুটি সংগঠনের আবেদন নিয়ে দুরকম পদক্ষেপ দেখেছিলে কোর্ট অনুমতি দেওয়া নিয়ে। কোর্টের কাছে যেটা অস্বস্তিকর, বারংবার বলার পরেও সিপি কোনো ভাবে অনলাইন ব্যাবস্থা করছে না। তাতে সবাই দেখতে পায় কে কবে আবেদন করেছে। ওয়াটগাংয়ে ক্ষেত্রে আসাচ্ছাতা দেখেছি।

আদালত মনে করে সব সংগঠনের আন্দোলনের অধিকার থাকা উচিত। একটা মিছিল একটা শহরকে পঙ্গু করে দেবে এটাও চাই না। তাই বারবার বলছি, সকলের জন্য একই বিধি করার জন্য অনলাইনে আবেদন নিন। কতদিন আর বলবো।

অ্যাডভোকেট জেনারেল বিচারপতির উদ্দেশ্যে বলেন আমিও মনে করি সকলের জন্য সমান নিয়ম হাওয়া উচিত। কাজের দিনে হাইকোর্ট চত্বরে ১০ হাজার লোকের মিছিলের জন্য কোর্ট অনুমতি দিতে পারবে? শুধুই ১৪৪ ধরার জন্য নয়, বাস্তবে।
জজ: আপনার সিপি কে বলুন মিছিল সভার আবেদন অনলাইনে গ্রহণ করার জন্য। যে ভাবে কলকাতায় দুর্গা পুজো সহ কোনো বড় উৎসবে রাস্তা বন্ধ হয়, সেটাও হাওয়া উচিত নয়।