Date : 2024-02-21

আবার ন্যানো বাংলায়!

আবার বাংলার বাণিজ্য বাজারে ফিরছে ন্যানো! – নিউ টাউনের এক পাঁচতারা হোটেলে সাংবাদিকদের সামনে এই ঘোষণা হল। নাহ,টাটা – বিড়লা -আম্বানি – আদানিদের মতো ভারী নামের লোকজন এই ঘোষণা করে নি। এই বাংলারই ব্যানার্জি – চ্যাটার্জি – মুখার্জির মানেই মোহনবাগান ক্লাবের প্রাক্তন সচিব সেই বলরাম চৌধুরী এন্ড কোম্পানি।

এই ন্যানো এবার গাড়ি শিল্পে নয়, আসছে বাড়ি শিল্পে। প্রোডাক্ট এর নাম-“ন্যানোফিক্স” (NANOFIX । জল যাতে বাড়ির ক্ষতি না করে, তার নানান মাল – মশলা বাজারে নিয়ে এসেছে ক্লিনটেক এনার্জি প্রাইভেট লিমিটেড।
এই সাংবাদিক সম্মেলনে এমন ব্রান্ডের ম্যাসকট : “ন্যানো জি” প্রকাশ পেল। খুব পাওয়ারফুল এক অ্যানিমেটেড চরিত্রের রূপ। আর সব প্রোডাক্টর এর ট্যাগ লাইনটিও চটকদার। ” ঘরকা ভ্যাকসিন “।

ছিমছাম এই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন সংস্থার চেয়ারম্যান – (ময়দানের মানুষ) বলরাম চৌধুরী। বামদিকে নিজের ছেলে – জয়দীপ চৌধুরী। তিনি এই সংস্থার – মানেজিং ডিরেক্টর। আর ডানে – ছেলের বৌ – প্রিয়াঙ্কা চৌধুরী। তিনি এই সংস্থার মার্কেটিং হেড।

ডিস্ট্রিবিউটর – রিটেলরদের নিয়ে এগিয়ে চলা। সেইদিনই হোটেলের একতলার বিশাল রুমে ছিল ষ্টার নাইট। বিনোদনের প্যাকেজ। চলেছে সারারাত ধরে। নানান মার্কেটিং প্ল্যান নিয়ে মধ্যবিত্তদের মাঝে ছড়িয়ে পড়তে চান ওনারা। বাড়ির ছাদ চুইয়ে জল পড়ছে? – ন্যানোফিক্স মুশকিল আসান। দেওয়ালে ফাঁটল? – ন্যানোফিক্স আছে। বাড়ির ভিতর সিলিং ভিজে? ভিজে ভিজে ভাব, দেওয়ালের গায়ে দাগ – ন্যানোফিক্স আছে।

এই রাজের এক বাঙালি ব্যবসায়ী বলছেন, বাংলাকে মেইন বাজার রেখে গোটা পূর্বাঞ্চল। তারপর গোটা দেশ। মধ্যমগ্রামের ফ্যাক্টরি এখন সব ধরণের প্রোডাকশন করে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার আরও একটি জায়গায় আরও বড় কারখানা বানানো হচ্ছে। ২০২৫ এর মধ্যে চালু হয়ে যাবে। তাহলে, এই বাংলার ছেলে -মেয়েদের চাকরির সুযোগ? – এমডি জয়দীপ বলেছেন : ” অনেকের চাকরি হবে। বাংলায় যোগ্য লোকের অভাব নেই।”