Date : 2024-07-22

2023 ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেমিফাইনালও হবে কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে

ভারত-দঃ আফ্রিকা ম্যাচের পাশাপাশি 2023 ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেমিফাইনালও হবে কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে। 8 অক্টোবর চেন্নাইতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে ভারত। 15ই অক্টোবর পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে রোহিত শর্মার দল।

প্রকাশিত হল 2023 ওডিআই ক্রিকেট বিশ্বকাপের সুচি এবং ম্যাচ ভেনু। বিশ্বকাপ শুরু 5ই অক্টোবর, আমেদাবাদে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে। ক্রিকেট বিশ্বযুদ্ধের যবনিকা পড়বে 19 নভেম্বর আমেদাবাদে। পাঁচটি ম্যাচ পাচ্ছে কলকাতার ইডেন গার্ডেন্স। এর মধ্যে রয়েছে একটি সেমিফাইনাল। আছে ভারত-দঃ আফ্রিকা ম্যাচও। রবিবার 5 নভেম্বর ইডেনে ভারত-প্রোটিয়া ম্যাচ। প্রথম সেমিফাইনাল পেল মুম্বই। একঝলকে ইডেনের পাঁচটি ম্যাচ—-
ইডেনে 2023 বিশ্বকাপের ম্যাচ
28 অক্টোবর -বাংলাদেশ বনাম কোয়ালিফায়ার দল
31 অক্টোবর – পাকিস্তান বনাম বাংলাদেশ
5 নভেম্বর – ভারত বনাম সাউথ আফ্রিকা
12 নভেম্বর – ইংল্যান্ড বনাম পাকিস্তান
16 নভেম্বর – বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করছে ভারত। দুই প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দল মুখোমুখি হবে অক্টোবরের 8 তারিখ। একঝলকে ভারতের ম্যাচ-
বিশ্বকাপে ভারতের ম্যাচ
8 অক্টোবর চেন্নাইতে- ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া
11 অক্টোবর দিল্লিতে- ভারত বনাম আফগানিস্তান
15 অক্টোবর আমেদাবাদে- ভারত বনাম পাকিস্তান
19 অক্টোবর পুনেতে- ভারত বনাম বাংলাদেশ
22 অক্টোবর ধর্মশালা- ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড
29 অক্টোবর লখনউতে- ভারত বনাম ইংল্যান্ড
2 নভেম্বর মুম্বইতে- ভারত বনাম কোয়ালিফায়ার 2
5 নভেম্বর কলকাতায়- ভারত বনাম দঃ আফ্রিকা
11 নভেম্বর বেঙ্গালুরুতে- ভারত বনাম কোয়ালিফায়ার 1
এবারের বিশ্বকাপে খেলবে মোট 10টি দল। প্রতি দলই রাউন্ড রবিন ফর্ম্যাটে একে অপরের বিপক্ষে একবার করে খেলবে। রাউন্ড শেষে প্রথম চারটি দল সেমিফাইনাল অর্থাৎ নকআউট রাউন্ডে প্রবেশ করবে। ক্রিকেটের নন্দনকানন ইডেন গার্ডেন্সে 96-এর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের কথা সকলেরই মনে রয়েছে। সেবার শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে গেছিল ভারত। 2016 টি20 বিশ্বকাপ ফাইনালে এই ইডেনেই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কাকতালিয়ভাবে সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজই হয়ত এবারের বিশ্বকাপে থাকবে না। 2011 সালে শেষবার একদিনের বিশ্বকাপ যখন ভারতে হয়েছিল, তখন চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল মাহির ভারত। সেই মাহিও আর নেই, সেই দলের সচিন-সেহওয়াগও আর নেই। রয়ে গেছে শুধুই সমর্থকদের প্রত্যাশা। বিরাট-রোহিতরা কি ভক্তদের প্রত্যাশা পূরণে সামর্থ হবেন, উত্তর দেবে সময়।