Date : 2024-02-25

কৃষক-শ্রমিকদের দাবি রাজ্যপালের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দেওয়াই উদ্দেশ্য

কেন্দ্রে মোদি – বিজেপি সরকারের জনবিরোধী ও জাতীয় স্বার্থবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে সংযুক্ত কিষান মোর্চা ও কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনগুলির ৫ জনের প্রতিনিধি দল মঙ্গলবার রাজভবনে স্মারকলিপি জমা দেন। এই স্মারকলিপিতে যে সব দাবি দাওয়া উল্লেখ রয়েছে সেগুলি রাজ্যপালের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দিতে চেয়েছেন।

কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নসমূহ এবং কৃষক সংগঠনগুলির মঞ্চ সংযুক্ত কিষান মোর্চা যৌথ উদ্যোগে রানি রাসমণিতে অবস্থান চলছে দু’দিন ধরে। মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর রাজভবন অভিযানের ডাক দিয়েছিল। তবে অভিযান হয়নি, সংগঠনগুলি থেকে ৫ জনের প্রতিনিধি দল রাজভবনে এসে স্মারকলিপিজমা দেয়।

রাজভবনে স্মারকলিপি জমা দেওয়ার পর বেরিয়ে এসে সিটু রাজ্য সম্পাদক আসাদুল্লাহ গাইন বলেন, এই কর্মসূচীর মূল দাবিগুলি হলো- ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য গ্যারান্টি আইন প্রণয়ন, রেগায় ১০০ দিনের কাজের বকেয়া মজুরী পরিশোধ এবং বছরে ২০০ দিনের কাজ ও ৬০০ টাকা দৈনিক ন্যূনতম মজুরী, মূল্যবৃদ্ধি রোধ এবং বেকারদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা, বিদ্যুৎ সংশোধনী বিল ও স্মার্ট মিটার বাতিল করা।

পিডিএস এর সাধারণ সম্পাদক সমীর পুতুতুন্ডু বলেন, প্রধানমন্ত্রী তাদের দাবি না মানলে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেবে। পারলে রাস্তায় নামবেন।

শিয়ালদহ ও হাওড়া স্টেশন থেকে দুটি বিশাল বর্ণাঢ্য মিছিলের মাধ্যমে হাজার হাজার কৃষক, শ্রমিক ও সাধারন মানুষ রানি রাসমণি অবস্থানে সামিল হন।