Date : 2024-02-24

2021 টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে ভারতের বিদায়ের পরেই দলের নেতৃত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন প্রাক্তন অধিনায়ক বিরাট কোহলি

2021 টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে ভারতের বিদায়ের পরেই দলের নেতৃত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন প্রাক্তন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। পরে একদিনের ক্রিকেট, 2022 সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট সিরিজ হারের পর লাল বলের ক্রিকেটেও অধিনায়কত্বের নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। বিরাটের এই নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর কারণে প্রাক্তন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে দোষারোপ করেছে অনেকে। প্রাক্তন বোর্ড সভাপতির কারণেই নাকি বিরাট কোহলিকে সরিয়ে রোহিত শর্মাকে অধিনায় করা হয়েছিল। তবে এবিষয়ে সৌরভের যে কোনও ভূমিকাই ছিল না একথাও আগে বহুবার বলেছেন তিনি। এবিষয়ে সাম্প্রতি আবার মুখ খুললেন প্রাক্তন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “এমন কোনও ভাবনা আমার মাথায় ছিল না। আমি কোহলিকে নেতৃত্ব থেকে সরাইনি। আগেও বহুবার এ কথা বলেছি। আবারও বলছি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে কোহলি আর চাইছিল না দলকে নেতৃত্ব দিতে। ওর এমন সিদ্ধান্তের পরে আমি বলেছিলাম যে, তুমি যদি টি-টোয়েন্টিতে দলকে নেতৃত্ব দিতে না চাও, তা হলে সাদা বলের নেতৃত্ব থেকেও সরে যেও। সাদা এবং লাল বলের আলাদা আলাদা ক্যাপ্টেন থাকবে।” বিরাটের নেতৃত্ব ছাড়ার পর ভারতীয় ক্যাপ্টেনশিপের দায়িত্ব যায় রোহিত শর্মার হাতে। তিনিও অবশ্য সেই সময় দলের নেতৃত্ব গ্রহণ করতে চাননি। রোহিত শর্মাকে অধীনায়ক করার পিছনে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ভূমিকা রয়েছে বলে জানা যায়। এবিষয়ে তিনি বলেন, “ভারতকে তিন ফরম্যাটে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত ছিল না রোহিত। সেক্ষেত্রে আমার সামন্য ভূমিকা থাকতে পারে কারণ হিতকে আমি জোর করেছিলাম অধিনায়ক হওয়ার জন্য। তবে দিনের শেষে ক্রিকেটারদের মাঠে নেমে সফল হতে হয়। আমাকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট করা হয়েছিল দেশের ক্রিকেটকে আরও উন্নত করার জন্য আমি সেই চেষ্টা করেছি।” অর্থাত্ তাকে নিয়ে বিরাটের সঙ্গে যতই সম্পর্ক খারাপ করার চেষ্টা হোক না কেন, বিতর্ক থেকে নিজেকের সরিয়েই রাখলেন প্রিন্স অফ ক্যালকাটা।