Date : 2024-02-24

বাইক চালাতে চালাতেই কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট। পড়ে মৃত্যু প্রৌড়ের

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক ঃ শুক্রবার সন্ধ্যায় ই এম বাইপাশে সায়েন্স সিটির কাছে আইটিসি হোটেলের সামনে বাইক থেকে পড়ে যান পেশায় সরকারি চাকরিজীবী দিব্যেন্দু দাস। তাঁর গাড়ি ডিভাইডারে ধাক্কা দিলে রাস্তায় ছিটকে পড়েন তিনি। প্রগতি ময়দান থানার পুলিশ তৎক্ষণাৎ তাঁকে এস‌এসকেএম হাসপাতালের ট্রমা কেয়ার সেন্টারে নিয়ে যায়। রাত এগারোটা নাগাদ মৃত্যু হয় দিব্যেন্দু দাসের(৬০)।

পেশা তাঁর সরকারি চাকরি, নেশা বাইক নিয়ে ঘুরে বেড়ানো। দমদমের দিব্যেন্দু দাস। রেলওয়ের চাকুরিজীবী দিব্যেন্দু দাসের চাকরির জীবন থেকে অবসর নেওয়ার কথা এই ডিসেম্বরেই। রেলের চাকরির পাশাপাশি দিব্যেন্দু বাবুর শখ হলো বাইক নিয়ে ঘুরে বেড়ানো। বাইক নিয়েই তিনি ঘুরে এসেছেন লাদাখ থেকে শুরু করে অরুনাচল প্রদেশ, সিকিম সহ বেশ কিছু জায়গায়। চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার পর সারা দেশ ঘুরে দেখার ইচ্ছা ছিলো দিব্যেন্দু বাবুর।

পাশাপাশি বাইক নিয়ে অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টসের দিকেও উৎসাহী হয়ে উঠেছিলেন অতি সম্প্রতি। শুক্রবার অফিস থেকে বাড়ি ফিরে বেড়িয়েছিলেন বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে। সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ দূর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে খবর, দূর্ঘটনা ঘটার সময় সম্ভবতঃ দিব্যেন্দু দাসের একটা মাইল্ড অ্যাটাক মতো হয়েছিলো। তাতেই তিনি বাইকের নিয়ন্ত্রণ হারান। ডিভাইডারে ধাক্কা মেরে রাস্তায় ছিটকে পড়লে তাঁর বুকে আঘাত লাগে। পাঁজরের হাড় ভেঙে যায়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই রাত এগারোটা নাগাদ আরও একবার তাঁর কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়। সেই ধাক্কা আর তিনি সামলাতে পারেন নি। দিব্যেন্দু দাসের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন তাঁর পরিবার ও বন্ধুরা।