Date : 2024-02-21

লোকসভা নির্বাচনের আগে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা। জরুরী বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী।

সঞ্জু সুর , সাংবাদিক ঃ লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্য সরকারের ফের আরেকটি জনমুখী কর্মসূচি। সেই কর্মসূচি সফল করার জন্য ঘোষণার একদিনের মধ্যেই জরুরি বৈঠকে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পৌরহিত্যে এই বৈঠকে মুখ্য সচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব ছাড়াও উপস্থিত থাকবেন সমস্ত দফতরের প্রধান সচিব বা সচিবরা, সব জেলার জেলাশাসক, সব জেলার পুলিশ সুপার ও সবকটি কমিশনারেটের সিপি। লোকসভা নির্বাচন নির্ঘণ্ট ঘোষণার আগে সম্ভবত এটাই সরকারের শেষ বড় কর্মসূচি, ফলে কোনরকম শৈথিল্য দেখাতে রাজি নন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার নবান্নের সাংবাদিক সম্মেলন করার সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য সরকারের নতুন একটি কর্মসূচির কথা ঘোষণা করেছিলেন। রাজ্য সরকারের ‘পাড়ায় সমাধান’ কর্মসূচির মতো এই নতুন কর্মসূচির‌ও নামকরণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। “সমস্যা সমাধান-জনসংযোগ’ নামে এই কর্মসূচির সূচনা হচ্ছে ২০ জানুয়ারি ২০২৪ থেকে। চলবে ১২ ফেব্রুয়ারি’২৪ পর্যন্ত। মুখ্যমন্ত্রীর কথায় মূলতঃ পাড়ায় সমাধান কর্মসূচির ক্ষেত্রে যে যে সুযোগ-সুবিধা গুলো রাজ্যের সাধারণ মানুষের জন্য দেওয়া হয়, ঠিক একই সুযোগ-সুবিধা এক্ষেত্রেও দেওয়া হবে। তবে নতুন এই কর্মসূচির একটা আলাদা বা নতুন বৈশিষ্ট্য রয়েছে। পাড়ায় সমাধান বা দুয়ারে সরকার কর্মসূচি মূলত ব্লক স্তরে সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু এই নতুন কর্মসূচি অর্থাৎ “সমস্যার সমাধান জনসংযোগ’ কর্মসূচি একেবারে বুথ লেভেল স্তরে হবে। তিনজন করে সরকারি আধিকারিক প্রতিটি বুথে পৌঁছাবেন। সেখানে ওই বুথ এলাকায় কোন মানুষের কি সমস্যা রয়েছে সরকারি সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে, যেগুলো এখনও পর্যন্ত পাড়ায় সমাধান বা দুয়ারে সরকার কর্মসূচির মাধ্যমে মেটানো সম্ভবপর হয়নি, সেইসব সমস্যার সমাধান করা হবে। জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, পাড়ায় সমাধান বা দুয়ারে সরকার কর্মসূচির ক্ষেত্রে এমন অনেক অভিযোগ এসেছে যেখানে বারবার এই ক্যাম্পগুলোতে পৌঁছ‌ও অনেকে তাদের সমস্যার সমাধান করতে পারেননি। ফলে পাড়ায় সমাধান বা দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে যাওয়ার বিষয় অনেক ক্ষেত্রেই অনীহা দেখা দিচ্ছে। এক তো বাড়ি থেকে ব্লক স্তরে পৌঁছাতে অনেকটা পথ পাড়ি দিতে হয়, তার ওপর কিছু কিছু সমস্যার সমাধান সেখানে গিয়ে হচ্ছে না। তাই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চেয়েছেন যাতে করে একেবারে বাড়ির কাছে নিজের বুথেই এই ধরনের ক্যাম্প বসালে সাধারণ মানুষের আগ্রহ কিছুটা বাড়বে। সেই কারণেই এই নতুন কর্মসূচির সিদ্ধান্ত। তবে প্রশাসনেরই অনেকের মতে লোকসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণার আগে সম্ভবত পাড়ায় সমাধান বা দুয়ারে সরকার ক্যাম্প করার সুযোগ আর হাতে নেই। তাই এই নতুন কর্মসূচির অবতারণা।