Date : 2024-07-16

গ্রেফতার ওটিপি চক্রের মূল পান্ডা

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক- টেলিগ্রাম চ্যানেলের মাধ্যমে প্রি- অ্যাকটিভেট সিম অবৈধভাবে কেনাবেচা বা অনৈতিকভাবে চীনা ওয়ালেটে টাকা ট্রান্সফার করে জালিয়াতির মতো ঘটনা। এই সব অপরাধের ঘটনা আগেই সামনে এসেছে। এবার নতুন অপরাধের কিনারা করল রাজ্য পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স। হোয়াটসঅ্যাপে অবৈধভাবে ওটিপি বিক্রি করার চক্রের মূল পাণ্ডাকে গ্রেফতার করল বেঙ্গল এসটিএফ। হিমাচল প্রদেশ থেকে গ্রেফতার করা হয় বছর ৩৫-এর গৌরব শর্মাকে। এই চক্র পাকিস্তান এবং চীনে বিস্তার করে থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। মুর্শিদাবাদ থানায় দায়ের হওয়া একটি অভিযোগের ভিত্তিতে এই চক্রের হদিশ পায় এসটিএফ আধিকারিকরা। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই মুর্শিদাবাদ, হুগলি, পূর্ব বর্ধমান জেলা থেকে মোট ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয় ওটিপি কেনাবেচার অভিযোগে।

ধৃতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল নকল সিম কার্ড বানিয়ে ওটিপি তৈরি ও বিক্রি করার। এই কাজ চালানো হত হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে। ধৃতদের নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জেরা করার পরই উঠে আসে হিমাচল প্রদেশের বাসিন্দা গৌরব শর্মার নাম। এরপরই হিমাচল প্রদেশের উদ্দেশ্যে যায় এসটিএফ-এর একটি দল। স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় তল্লাশি চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় গৌরবকে। ওটিপি কেনাবেচার আন্তর্জাতিক চক্রের সঙ্গে যোগ রয়েছে গৌরব শর্মার বলে এসটিএফ সূত্রে জানা গেছে। আইআরসিটিসি, সুইগি, জোম্যাটোর অনলাইন সংস্থাগুলি থেকে ওটিপি সংগ্রহ করেন চক্রের কিংপিন গৌরব। তারপর ফোন নম্বর সহ ওটিপি বিক্রি করে দেওয়া হয় হোয়াটসঅ্যাপ বা টেলিগ্রামের মাধ্যমে। টাকার লেনদেন করা হচ্ছিল ইউপিআই-এর মাধ্যমে। মূল অভিযুক্তের সঙ্গে পাকিস্তান ও চীনের লেনদেন হওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পারে বলেও মনে করছে পুলিশ। মঙ্গলবার ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। বুধবার স্থানীয় আদালতে পেশ করে ট্রানজিট রিমান্ডে এরাজ্যে এনে বহরমপুর আদালতে পেশ করা হবে তাঁকে।