Date : 2024-02-24

কেন্দ্রের উজালার পাল্টা ধোঁয়া হীন ওভেন। এক কোটি পরিবারকে দেবে পরিবেশ দফতর।

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : কেন্দ্র সরকারের ‘উজালা’ প্রকল্প নিয়ে গর্বের শেষ নেই বিজেপির। দেশের মা-বোনেদের জন্য এটা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একটা উপহার হিসাবে দেখেন তাঁরা। তবে এই ‘উজালা’ প্রকল্প নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই বিরোধীদের। এবার অবশ্য এই ‘উজালা’-র পাল্টা ধোঁয়া হীন ওভেন দেওয়ার সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের। ইতিমধ্যেই পাইলট প্রজেক্ট হিসাবে দুই জেলায় এই ওভেন দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রায় সময় বলে থাকেন, “বলো কি নন্দলাল, বারোশো টাকার গ্যাসে হচ্ছে বিনা পয়সার চাল।” মূলতঃ গ্যাসের দাম নিয়েই যে তিনি কটাক্ষ করেন তা সকলেই মানেন। তবে বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হয় যে দেশের গরীব মা-বোনেদের জন্য প্রধানমন্ত্রী ‘উজালা’ গ্যাস যোজনা এনেছেন। কিন্তু সেই গ্যাসও সব সময় পাওয়া যায় না বলেই অভিযোগ বিরোধীদের। এখানে মাস্টার্স স্টোক দিতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে রাজ্যের পরিবেশ দপ্তর এরাজ্যে দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাসকারী প্রায় এক কোটি পরিবারকে বিনামূল্যে স্মোকহীন ওভেন দেবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

রাজ্যের পরিবেশ দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী গোলাম রব্বানী বলেন, “আপাতত পাইলট প্রজেক্ট হিসাবে বর্ধমান ও হাওড়া জেলায় এই ওভেন দেওয়ার কাজ চলছে। এরপর উত্তর দিনাজপুর জেলায় দেওয়া হবে।” এক একটি ওভেনের জন্য খরচ পড়বে প্রায় পাঁচ হাজার টাকা।

তার জন্য অর্থের সংস্থান করছে রাজ্য পরিবেশ দপ্তর। মন্ত্রী আরো জানান, “এই কাজ দেখে বিশ্ব ব্যাংক এই কাজের সঙ্গে সহযোগী হিসেবে যোগ দেওয়ার জন্য ইচ্ছা প্রকাশ করেছে।” পাইলট প্রজেক্টের কাজ ঠিকঠাক ভাবে এগোলে তারপর প্রকল্পের নামকরণ করবেন মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং বলে জানালেন মন্ত্রী গোলাম রব্বানী। দারিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী এ রাজ্যের এক কোটি পরিবারকে এই স্মোকিং দেওয়া হবে। এই ওভেন পাওয়ার জন্য বিডিও বা ব্লক ডেভেলপমেন্ট অফিসারের কাছে আবেদন করতে হবে।