Date : 2024-05-26

শাহজাহানের ঠিকানা ভবানী ভবন।কারা মারধর করল ইডি কর্তাদের? লুটের মাল কোথায়? নিম্ন আদালতে ‘স্বীকারোক্তি’ শাহেনশার।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়,সাংবাদিক : রেশন বন্টন দুর্নীতি মামলায় গত ৫ই জানুয়ারি সন্দেশখালীর বেতাজ বাদশা শেখ শাহজাহানের বাড়িতে তল্লাশি অভিযানে গিয়েছিল ইডি আধিকারিকরা। তাঁরই নির্দেশেই ইডি আধিকারিকদের উপর হামলা হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার গাড়িতেও। পুলিশ সূত্রের খবর শেখ শাহজাহানকে রাতভর জেরায় তার স্বীকারোক্তি ঘটনা ঘটেছিল তারই অঙ্গুলি হিলনে।

বৃহস্পতিবার সকালে বসিরহাট সাব জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের এজ্লাসে শেখ শাহাজানকে তোলা হলে সরকারি আইনজীবীর পক্ষ থেকে জমা দেওয়া নথিতে স্পষ্ট শেখ শাহজাহানের স্বীকারোক্তি। তাতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ৫ জানুয়ারি সকালে ইডি আধিকারিকদের উপর হামলা চালিয়েছিল শেখ শাহজাহান। তিনি নিজে জানিয়েছেন, তাঁর নির্দেশেই অনুগামীরা জড়ো হয়ে যায়। মারধর করা হয় ইডি আধিকারিক এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের। গ্রেপ্তারি এড়াতেই হামলা বলেও জানায় শাহজাহান। সন্দেশখালির ‘বাঘ’ তদন্তে পুলিশকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। মারধরে কারা যুক্ত ছিল, তা জানাবে শাহজাহান। এছাড়া কোথায় লুট হওয়া জিনিসপত্র রয়েছে, তাও জানাবে তৃণমূল নেতা। সে সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্যের খোঁজ পেতে আদালত ১০ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

একদিকে বসিরহাটা মহকুমা আদালতে যখন তাকে তোলা হয় ঠিক সেই সময় কলকাতা হাইকোর্টের ও দাস্ত হয় শেখ শাহজাহান।নিম্ন আদালতে জামিনের আবেদন গুলি প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ আবেদন করতে চায় শাজাহান ।সেই জন্য মূল শত প্রণোদিত মামলায় যুক্ত হতে চেয়ে আজ কলকাতা হাইকোর্টের আবেদন শেখ শাজাহানের আইনজীবী বিশ্বজিৎ মুখার্জি।

৪২টি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।তাই রাজ্যের উচ্চ আদালতে নিজের বক্তব্য জানতে চায় শাজাহান ।
শাহজাহানের আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে প্রধান বিচারপতির মন্তব্য। আগামী ১০ বছর আমরা আপনাকে ব্যস্ত রাখব। আপনি ভালো করে একটি লিগাল টিম তৈরি করুন কারণ দশ বছর আপনার অন্য কাজ করতে হবে না এই মামলা চালাতেই কেটে যাবে। প্রধান বিচারপতি কে এ ও বলতে শোনা যায় আমাদের ওই ব্যাক্তির প্রতি কোনো সহানুভূতি নেই জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আর্জি খারিজ। আদালত বললো আমাদের আরো অনেক কাজ আছে।

বৃহস্পতিবার রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস জানায় “আমি বলেছিলাম সুড়ঙ্গের শেষে আলো আছে। এটাই গণতন্ত্র। আমরা এটার জন্য অপেক্ষা করেছিলাম। আর হলও তাই। এটা সকলের জন্য শিক্ষা। আশা রাখি বাংলায় আইনশৃঙ্খলার নতুন ভোর হবে। আমি গর্বিত যে ভালো কিছু ঘটল।”

তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ জানিয়েছিলেন আশা প্রকাশ করেছিলাম শেখ শাহাজান গ্রেপ্তার হবে পুলিশ তার দায়িত্ব পালন করেছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার অভিযোগ করেছেন শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের জন্যই এতদিন আত্মগোপন করেছিল শেখ শাহজাহান। সিপিআইএমের বর্শিয়ান নেতা সুজন চক্রবর্তী এই প্রসঙ্গে বলেন শেখ শাহাজাহান সন্দেশখালিতেই ছিল এবং সেটা পুলিশের ঘেরাতোপে পেয়েছিল।

দক্ষিণ বঙ্গ এডিজি, সুপ্রতিম সরকার এদিন সকালে সাংবাদিক সম্মেলন করে শেখ শাহাজাহান গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে বলেন আইনি বাধ্যবাধকতার কারণেই গ্রেফতার করতে সমস্যা হয়েছিল শেখ শাহাজাহানকে। শুধু তাই নয় সন্দেশকালীর সিপিআইএমের প্রাক্তন বিধায়ক নিরাপদ সরদার গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে বলেন আগে গ্রেপ্তার পরে এফ আই আর।

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ পেয়েই সন্দেশখারীর হালদারপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এবং জেলিয়াখালি পরিদর্শনে যাবার অনুমতি পেয়েছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতার শুভেন্দু অধিকারী। হাইকোর্টের নির্দেশ পাওয়ার পরেও পুলিশি বাধার মুখে পড়তে হয় শুভেন্দু অধিকারীকে। যদিও পরে তাকে যেতে দেওয়া হয়।